Date : 2021-10-22

চলতি মাসেই শুরু স্পুটনিক লাইটের সিঙ্গেল ডোজ ভ্যাকসিনের ট্রায়াল

সায়ন্তিকা ব্যানার্জী, রিপোর্টার : করোনা টিকার দুটি বা তিনটি ডোজ আর নয় , এবার একটি ডোজেই হবে বাজিমাত। কলকাতায় শুরু হচ্ছে স্পুটনিক লাইটের সিঙ্গেল ডোজ ভ্যাকসিনের ট্রায়াল। চলতি মাসের তৃতীয় সপ্তাহেই শুরু হবে ট্রায়াল। ইতিমধ্যেই দেশের ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অফ ইন্ডিয়া এই ফেজ ৩ ক্লিনিকাল ট্রায়াল করার অনুমোদন দিয়ে দিয়েছে। দেশের মোট ১০ টি হাসপাতালে ১৭৯ জন সেচ্ছাসেবকের উপর এই গবেষণা করা হবে। ভারতে এই টিকার নির্মাণ করছে ডাঃ রেড্ডি’স ল্যাব এবং তারা রাজ্যের তিনটি হাসপাতালকে নির্বাচিত করেছে এই গবেষণার জন্য।

সেই ৩টি হাসপাতাল হল, রুবি জেনারেল হাসপাতাল, স্কুল অফ ট্রপিকাল মেডিসিন এবং এনআরএস মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতাল।
সর্বপ্রথম এই ট্রায়াটি শুরু হবে রুবি জেনারেল হসপিটালে। বাকি দুই হাসপাতালকে ব্যাক-আপ সাইট হিসাবে ভাবা হয়েছে। প্রত্যেকটি হাসপাতাল থেকে ১৮ জন সেচ্ছাসেবকের উপর এই টিকার ট্রায়াল করা হবে। এথিক্যাল কমিটির অনুমোদন মিললেই শুরু হয়ে যাবে ডাঃ রেড্ডি’স-এর স্পুটনিক লাইটের ট্রায়াল। ২৮ দিনের পর্যবেক্ষণের রিপোর্ট সন্তোষজনক হলে পুজোর পরই টিকা চলে আসতে পারে বাজারে।

রুশ ফর্মুলাতেই ভারতীয় কোম্পানি ডাঃ রেড্ডি’স তৈরি করবে স্পুটনিক লাইট। রাশিয়ায় এই টিকার কার্যকারিতা ৭৯.৪ শতাংশ বলে প্রমাণিত। অন্যান্য করোনা টিকায় যেমন ট্রায়ালের স্বেচ্ছাসেবকদের একাংশকে প্ল্যাসিবো বা স্যালাইন ওয়াটার দেওয়া হয়, এই পরীক্ষায় তা হবে না। অংশগ্রহণকারীরা সকলকেই পাবেন ভ্যাকসিন।

এই প্রসঙ্গে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল বিশেষজ্ঞ স্নেহেন্দু কোনার বলেছেন, “এই রাজ্যে স্পুটনিক ভি-এর প্রথম ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল আমাদেরই রিসার্চ টিম ই করেছিল। ডিসিজিআই অনুমোদনের পর ভ্যাকসিনটি এখন রাজ্য তথা দেশে দেওয়া হচ্ছে। যেহেতু এই ভ্যাকসিনটি দেশীয় সংস্থা তৈরি করবে তাই মূল্যও কম হতে পারে। আর যেহেতু এই টিকাটির দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার অপেক্ষা করতে হবে না তাই জনগণ খুব আগ্রহী হবে বলে আশা করি।