Date : 2021-10-22

Calcutta High Court : মাটি খুঁড়ে পাওয়া মোহর ও অলংকারের হদিশ জানতে হলফনামা তলব

স্নেহাশীষ চট্টোপাধ্যায়, রিপোর্টার : মামলার বয়ান অনুযায়ী চলতি বছরের জুন মাসে মালদহের মহিদিপুরে একটি পুকুর খননের কাজ চলছিল।পুকুরের মাটি কাটতেই উদ্ধার হয় প্রাচীন যুগের মাটির জিনিসপত্র র পাশাপাশি সোনার অলঙ্কার ও সোনার মোহর।খবর চাপা গেল না।সারা জেলায় খবর ছড়িয়ে পড়তেই ঘটনাস্থলে পৌঁছে যায় ইংলিশ বাজার থানার পুলিশ। হাইকোর্টে আবেদনকারী সৈয়দ নাফিরুল ইসলামের অভিযোগ, ইংলিশ বাজার থানার IC মদনমোহন রায়ের নির্দেশে ঘটনাস্থল থেকে কিছু সোনার অলংকার ও মোহর সিজ করে পুলিশ।

মামলাকারীরা আইনজীবী জানান নিয়মানুযায়ী প্রাচীন যুগের কোনও জিনিস মাটির নিচ থেকে উদ্ধার হলে সেই সব জিনিসের ভিডিওগ্রাফি করতে হয় এবং প্রত্যক্ষদর্শীদের বয়ান নিতে হয়। পাশাপাশি প্রত্নতত্ত্ব বিভাগকেও বিষয়টি জানানো প্রয়োজন। কিন্তু এক্ষেত্রে পুলিশ কিছুই করেনিবলে অভিযোগ।এই ঘটনায় ADG ( আইনশৃঙ্খলা) ইংলিশ বাজার থানার আইসি মদন মোহন রায়কে ৬ই মে ২০২১ ক্লোজড করে দেন। ১৭ মে এডিজি ( আইনশৃঙ্খলা) তাঁকে কলিয়াচক থানায় স্থানান্তরের নির্দেশ দেন।

প্রশ্ন ৬ই মে থেকে ক্লোজ করা রয়েছেন আইসি। তাহলে কী ভাবে মোহর সিজ করলেন? এরপর বিষয়গুলি ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির নজরে আসার পর পুলিশের কাছে জানতে চ্ওয়া হয় সোনার গহনা, সোনার মোহর ও মাটির জিনিস কোথায় গেল? মামলাটি গ্রহনযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন সরকার পক্ষের আইনজীবী। রাজ্যের আবেদন খারিজ করে পুলিশকে নির্দেশ দেন উদ্ধার হওয়া গহনা ও জিনিসের তালিকা এবং সেগুলি কোথায় আছে তা হলফনামার আকারে ৪ সপ্তাহের মধ্যে জমা দিতে।

আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে পুলিশকে হলফনামা আকারে সমস্ত তথ্য জানাতে হবে।