Date : 2021-10-22

Amphan Relief Corruption : আমফানের ত্রাণ দুর্নীতি নিয়ে রাজ্যকে ভৎসনা

স্নেহাশীষ চট্টোপাধ্যায়, রিপোর্টার : আমফানের সরঞ্জাম চুরি। তদন্তের গতি প্রকৃতিতে সন্তুষ্ট নয় কলকাতা হাইকোর্ট। তদন্ত সংক্রান্ত রিপোর্ট আইওয়াশ বলে মন্তব্য ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চের। আদালতে জমা দেওয়া তদন্ত রিপোর্ট গ্রহণ করলেন না ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি। পুনরায় রাজ্যকে রিপোর্ট দাখিলের নির্দেশ। অভিযোগের ক্ষেত্রে উপযুক্ত ধারা প্রয়োগ করা হয়নি। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে তদন্তকারী অফিসার কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না কেন। প্রশ্ন তুললেন বিচারপতি।

২০১৯ সালে উত্তর ২৪ পরগনা জেলাশাসক ও ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট পক্ষ থেকে দু’কোটি টাকা বসিরহাট ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েত আমফানের রুট সরঞ্জাম দেওয়া হয়।

আবেদনকারীর অভিযোগ ঘোড়ারাস কুলীন গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্য ও উপপ্রধান ওই সরঞ্জাম ব্যক্তিগতভাবে একটি গোডাউনে মজুদ করে রাখে। চলতি বছরের ২ জুন ওই সরঞ্জাম ট্রাকে করে পাচার করা হয়। স্থানীয় মানুষরা ধরে ফেলে। মাটিয়া থানার পুলিশ স্বতঃপ্রণোদিত অভিযোগ দায়ের করে ওই দিন। ৬ই জুন পুনরায় তারা ওই প্রাইভেট গোডাউন থেকে ফের ওই আম্ফান এর সরঞ্জাম পাচার করতে যায়। এলাকার মানুষ আবার তিনটি ট্রাক কে ধরে ফেলে। স্থানীয় মানুষ মাটিয়া থানায় ৬ই জুন পুনরায় অভিযোগ দায়ের করে। ওই অভিযোগের 409 ধারা দেওয়া হয় না। এর পরেই আবেদনকারী স্বপন কুমার কর্মকার কলকাতা হাইকোর্টে বিষয়টি নজরে এনে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করে। ওই মামলায় আজকে সরকারের পক্ষ থেকে রিপোর্ট জমা দিতে গেলে সেই রিপোর্ট নিতে অস্বীকার করে ডিভিশন বেঞ্চ। তদন্তের গতি প্রকৃতি জানিয়ে ২৭ শে সেপ্টেম্বরের মধ্যে পুনরায় তদন্ত রিপোর্ট জমা করতে হবে রাজ্য সরকারকে জানিয়ে দিল কলকাতা হাইকোর্ট।