Date : 2021-09-20

শিক্ষককে ধরে নিয়ে আসার দায়িত্ব পুলিশ কমিশনারের,নির্দেশ হাইকোর্টের।

স্নেহাশীষ চট্টোপাধ্যায়, রিপোর্টার : তিনি চোর, ডাকাত, খুনি নয়, তিনি একজন শিক্ষক।তাঁকেই ধরে নিয়ে আসার নির্দেশ খোদ পুলিশ কমিশনারকে। মঙ্গলবার এমনই নজিরবিহীন নির্দেশ দিলেন হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। মামলার বয়ান অনুযায়ী ২৮ জানুয়ারি ২০২১ হাইকোর্টের বিচারপতি শেখর ববি সারাফ অ্যাসিস্ট্যান্স টিচারকে নির্দেশ দিয়েছিলেন বিষয়টি দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য। কিন্তু তাতে কোনও কাজ না হওয়ায়ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা দায়ের করেন মামলাকারি শান্তনু ঘোষ।

মঙ্গলবার মামলার শুনানিতে হাওড়া পুলিশ কমিশনারকে নির্দেশ দেন হাওড়া বালটিকুরি মুক্তারাম দে উচ্চ বিদ্যালয়ের টিচার ইনচার্জ দিব্যেন্দু মুখার্জী কে ১৬ সেপ্টেম্বর বেলা ২টোয় কলকাতা হাইকোর্টে হাজির করতে হবে।

মামলার বয়ান অনুযায়ী ২০২০ সালের জানুয়ারি মাসে অবসর গ্রহণ করেন ওই বিদ্যালয়ের অশিক্ষক কর্মী শান্তনু ঘোষ। নিয়ম অনুযায়ী অবসরগ্রহণের দিনের আগেই পেনশন সংক্রান্ত সমস্ত হিসেব-নিকেশ সম্পন্ন করতে হয় স্কুল কর্তৃপক্ষকে। এক মাস পর থেকেই শুরু হয় অবসরকালীন পেনশন।
কিন্তু এক্ষেত্রে সান্তনু বাবু এখনো পর্যন্ত তার অবসরকালীন আর্থিক সুযোগ-সুবিধা পাননি। আইনজীবী ময়ূরী ঘোষের অভিযোগ আবেদনকারীর পেনশনের ফাইলটি অযথা স্কুল ও জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শক এর অফিসে বারংবার চালাচালি হচ্ছে। ক্রমাগত বিভাগীয় ভুলের জন্য এই আর্থিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন সান্তনু বাবু। প্রভিডেন্ট ফান্ড দপ্তরে গেলেও ওই ফাইলটি পুনরায় ফেরত পাঠানো হয় বলে জানান আইনজীবী ময়ূরী ঘোষ।

আজ বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় নির্দেশ দিয়েছেন মধ্যে হাওড়ার পুলিশ কমিশনার কে ওই বিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষককে আদালতে হাজির করতে হবে ১৬ সেপ্টেম্বর।