Date : 2021-09-20

কেন ভবিষ্যৎ গড়ার কারিগরদের আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে হবে : হাইকোর্ট

স্নেহাশীষ চট্টোপাধ্যায়, রিপোর্টার : ভবিষ্যৎ গড়ার কারিগরদের কেন আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে হবে মন্তব্য বিচারপতি সৌগত ভট্টাচার্যের । সাম্প্রতি বিকাশ ভবনের সামনে একজন শিক্ষিকা একসাথে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেছে কারণ তাদের বাড়ি থেকে তাদের স্কুলের দূরত্ব কয়েক কিলোমিটার বেড়ে গিয়েছে স্কুল শিক্ষা দপ্তর তাদের বদলি করে দিয়েছিলেন যে কারণে তাদের এই পথ বেছে নিতে হয়েছিল বর্তমানে তারা বর্তমানে তারা চিকিৎসাধীন ।চুক্তিভিত্তিক শিক্ষিকার বদলি সংক্রান্ত নির্দেশিকার ওপরে অন্তর্বর্তীকালীন স্থগিতাদেশ জারি করল কলকাতা হাইকোর্ট।
মামলার বয়ান অনুযায়ী শিক্ষিকা অনিমা নাথ হুগলির একটি বিদ্যালয় চুক্তিভিত্তিক শিক্ষকের চাকরি করতেন। তিনি ভোকেশনাল টিচার ছিলেন। প্রায় ৫ববছর শিক্ষকতা করার পর ১৯ আগস্ট ২০২১ তাকে হুগলি থেকে মালদা হয়ে স্থানান্তর করা হয় বলে অভিযোগ।এই মর্মে একটি নির্দেশিকাও জারি করে রাজ্যের স্কুল শিক্ষা দফতর। সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন ওই শিক্ষিকা ।

বুধবার হাইকোর্টের মামলার শুনানি শেষে বিচারপতি সৌগত ভট্টাচার্যের নির্দেশ দেন চুক্তিভিত্তিক শিক্ষকদের এইভাবে স্থানান্তরের নির্দেশিকা জারি করা যায় না। এই ধরনের কোনো নিয়ম নেই,আইন নেই।কেন এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে তা রাজ্য সরকার ও আবেদনকারীকে হলফনামা জমা দিতে বললো হাইকোর্ট। পাশাপাশি আগামী ৩০ শে নভেম্বর ২০২১ পর্যন্ত অনিমা নাথের স্থানান্তরের নির্দেশের উপরে অন্তর্বর্তীকালীন স্থগিতাদেশ জারি থাকবে । মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী ১৫ ই নভেম্বর ২০২১।