Date : 2021-10-22

১১ বছর স্কুলের প্রধান শিক্ষক নেই কেন? রিপোর্ট তলব করলো হাইকোর্ট।

স্নেহাশীষ চট্টোপাধ্যায় ,রিপোর্টার : ১৪ ই সেপ্টেম্বরের মামলার শুনানিতে হাওড়া পুলিশ কমিশনারকে নির্দেশ দেন হাওড়া বালটিকুরি মুক্তারাম দে উচ্চ বিদ্যালয়ের টিচার ইনচার্জ দিব্যেন্দু মুখার্জী কে ১৬ সেপ্টেম্বর বেলা ২টোয় কলকাতা হাইকোর্টে হাজির করতে হবে।সেমত বৃহস্পতিবার ওই স্কুলের আসিস্টেন টিচার কে হাজির করে পুলিশ।

২০২০ সালের জানুয়ারি মাসে অবসর গ্রহণ করেন ওই বিদ্যালয়ের অশিক্ষক কর্মী শান্তনু ঘোষ। নিয়ম অনুযায়ী অবসরগ্রহণের দিনের আগেই পেনশন সংক্রান্ত সমস্ত হিসেব-নিকেশ সম্পন্ন করতে হয় স্কুল কর্তৃপক্ষকে। এক মাস পর থেকেই শুরু হয় অবসরকালীন পেনশন।

হাওড়া পুলিশ কমিশনারের পক্ষ থেকে আদালতে হাজির করান টিচার ইন চার্জ কে। আদালতে তিনি জানান তাঁর বিদ্যালয়ে ১১ বছর ধরে কোন প্রধান শিক্ষক নেই। সম্প্রতি শান্তন বাবুর অবসরের পর কোন আশিক্ষাক কর্মী নেই।তাই কাজে বিলম্ব হচ্ছে।বিচারপতি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দুটি পদে রিপোর্ট তলব করেন। আগামী১৫ই অক্টোবরের মধ্যে জমা দিতে হবে।পেনশন কতৃপক্ষ কেও রিপোর্ট জমা দিতে হবে।

বৃহস্পতিবার হাওড়া পুলিশ কমিশনারের পক্ষ থেকে আদালতে হাজির করান টিচার ইন চার্জ কে। আদালতে তিনি জানান তাঁর বিদ্যালয়ে ১১ বছর ধরে কোন প্রধান শিক্ষক নেই। সম্প্রতি শান্তন বাবুর অবসরের পর কোন শিক্ষক কর্মী নেই।তাই কাজে বিলম্ব হচ্ছে।বিচারপতি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দুটি পদে রিপোর্ট তলব করেন। আগামী১৫ই অক্টোবরের মধ্যে জমা দিতে হবে।

বিদ্যালয়ে শিক্ষক কর্মী শান্তনু ঘোষ কে আগামী ২৪ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তার সমস্ত বকেয়া মিটিয়ে দিতে হবে জেলা স্কুল পরিদর্শক কে। পাশাপাশি প্রভিডেন্ট ফান্ড কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ তাদের কাছেও শান্তনুবাবুর যে বকেয়া পরে রয়েছে তা অবিলম্বে মিটিয়ে দিতে হবে নির্দেশ বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের।

১৪ই সেপ্টেম্বরের মামলার শুনানিতে হাওড়া পুলিশ কমিশনারকে নির্দেশ দেন হাওড়া বালটিকুরি মুক্তারাম দে উচ্চ বিদ্যালয়ের টিচার ইনচার্জ দিব্যেন্দু মুখার্জী কে ১৬ সেপ্টেম্বর বেলা ২টোয় কলকাতা হাইকোর্টে হাজির করতে হবে।সেই মতো বৃহস্পতিবার ওই স্কুলের আসিস্টেন টিচার কে হাজির করে পুলিশ।

২০২০ সালের জানুয়ারি মাসে অবসর গ্রহণ করেন ওই বিদ্যালয়ের অশিক্ষক কর্মী শান্তনু ঘোষ। নিয়ম অনুযায়ী অবসরগ্রহণের দিনের আগেই পেনশন সংক্রান্ত সমস্ত হিসেব-নিকেশ সম্পন্ন করতে হয় স্কুল কর্তৃপক্ষকে। এক মাস পর থেকেই শুরু হয় অবসরকালীন পেনশন।

কিন্তু এক্ষেত্রে সান্তনু বাবু এখনো পর্যন্ত তার অবসরকালীন আর্থিক সুযোগ-সুবিধা পাননি।বৃহস্পতিবার টিচার ইন চার্জের উপস্থিতে আদালত জানায় আগামীকাল শান্তনু বাবু বিদ্যালয়ে গিয়ে কাগজে সই করবেন।এবং ২৪ সেপ্টেম্বরের মধ্যে জেলা স্কুল পরিদর্শক কে তাঁর বকেয়া মিটিয়ে দিতে হবে।