Date : 2021-12-02

লক্ষ্মী লাভের আশায় ব্যবসায়ীরা

শাহিনা ইয়াসমিন, রিপোর্টার : বাঙালির বারো মাসে তেরো পার্বণ। এই তেরো পার্বণের সঙ্গে এখন যুক্ত হয়েছে ধনতরাস। গৃহে শ্রী বৃদ্ধির জন্য এদিন সোনা- রুপোর দোকানে ভিড় জমান ক্রেতারা। দীর্ঘ লকডাউনে বন্ধ ছিল সোনার দোকান। তাই এই ধনতরাসে লক্ষ্মীলাভের আশায় বুক বেঁধেছেন সোনা-রুপো ব্যবসায়ীরা।
দুর্গাপুজোর পরে এবং কালীপুজোর আগে হয় ধনতরাস। কার্তিক মাসের ত্রয়োদশীর দিনটিকে ধনতরাস বলা হয়। ভারতে ধনতরাস উতসব উদযাপিত হয় সোনা, রুপোর বাসন কিনে। অন্যান্য বহু উতসবের মতো বাঙালিও এই উতসব আনন্দ সহকারে পালন করে , এবং মা লক্ষ্মীর কাছে শ্রীবৃদ্ধির প্রার্থনা করে। কথিত আছে ধাতু কিনলে তার জৌলুসে আকর্ষিত হয়ে মা লক্ষ্মী ঘরে আসেন । তাই ঘরে ঘরে ধনতরাসের দিন ধাতু কেনার ধুম লক্ষ্য করা যায় । মজুরিতে ছাড় মেলায় সোনা- রুপোর দোকানে ভিড় জমান ক্রেতারা। সমৃদ্ধি বা লক্ষ্মী লাভের আশায় অনেকেই সোনা -রূপোর গয়না কেনেন। করোনা আবহে লকডাউনের জন্য সোনা রূপোর দোকান বন্ধ ছিল। কোভিড বিধি মেনে ফের খোলা হয়েছে সোনা-রুপোর দোকান। ধনতরাসে আশার আলো দেখছেন শৈলেন বৈদ্য, জগবন্ধু পাল নামক ব্যবসায়ীরা।

গরানহাটা ও বউবাজার হলো সোনা-রূপোর আড়ত। গরানহাটা মূলত সোনা-রূপোর পাইকারি ব্যবসার জন্য বিখ্যাত। বউবাজার মূলত সোনার দোকানের জন্য প্রসিদ্ধ। সেই দুইজায়গাই এখন অচেনা ছবি। এই অতিমারি পরিস্থিতিতে। ১০ গ্রাম সোনার দাম ৪৯ হাজারের কাছাকাছি, ও রুপো প্রতি গ্রাম ৬৫-৭০ টাকা। পকেটে টান থাকা সত্ত্বেও সাধ্যমতো কিছু কিনছেন ক্রেতারা। এমনটাই জানাচ্ছেন সোনা ব্যবসায়ীরা। ব্যবসায়ীরা তাই তাকিয়ে ধনতরাসের দিকে। ৪৯ হাজার টাকার গয়না কিনলেই প্যান কার্ড মাস্ট। আধার কার্ড তো রয়েছেই। এমনটাই জানালেন বঙ্গীয় স্বর্ণশিল্পী সমিতির সম্পাদক সুব্রত কর।
সোনা-রুপোর দাম বেশি হওয়াতে অনেকে দুধের সাধ ঘোলে মেটাতে ইমিটেশানের লক্ষ্মী-গণেশ কিনছেন। জানাচ্ছেন ইমিটেশন গহনা ব্যবসায়ী সুজল কুমার দে।
একদিকে কোভিড শঙ্কা, অন্যদিকে 49 হাজারের কাছাকাছি সোনার গয়নার দাম৤ একের পর এক ফাঁড়া কাটিয়ে ধনতরাসে আশায় বুক বাঁধছেন ব্যবসয়ীরা।