Date : 2021-11-27

করোনার আঁতুড়ঘরে ফের বিপদ, সংক্রমণ বাড়ছে ক্রমশ

তথাগত চ্যাটার্জী, নিউজ ডেস্ক : ফের একবার বিপদের গন্ধ। যে বিপদের আভাস ২০১৯ এর শেষের দিকে প্রথম পাওয়া গিয়েছিল। দেখতে দেখতে আভাস থেকে তা বিপদের পরমাণু বোমা হয়ে ফেটে পড়েছিল চিন ও বিশ্বে। সেই কালান্তক বিপদের নাম করোনা ভাইরাস। কোভিড-১৯ এর শুরুটা হয়েছিল চিনে। উহান থেকে প্রথম ছড়িয়েছিল সংক্রমণ। তারপরের ঘটনা আজ শিশুর কাছেও অজানা নয়। মারণ ভাইরাসের টিকা আবিষ্কার হলেও পুরোদমে এখনও কাবু করা যায়নি সংক্রমণকে। বরং টিকা নিয়ে টিকা-টিপ্পনী শুরু হয়ে গিয়েছে বিশ্বজুড়ে। ২০২১ এর শেষে সংক্রমণ যে অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে তা মানছেন বিশেষজ্ঞ ও ভাইরাস বিশারদদের একটা বড় অংশ। তবে বিশ্ব থেকে করোনার ভূত এখনও যায়নি। কোভিড-বিধি শিথিল, টিকাকরণের হার কমে যাওয়া-সহ আরও নানা কারণের জেরে অনেক দেশেই বাড়ছে সংক্রমণ। উদ্বেগ বাড়ছে করোনার জন্মদাতা চিনেও।

সূত্রের খবর চিনের উত্তর ও উত্তর পশ্চিমাংশে একটু একটু করে বাড়ছে সংক্রমণ। করোনা দৈত্যকে বেঁধে রাখতে বিভিন্ন এলাকায় জারি করা হয়েছে লকডাউন। ভাইরাসের ছোঁয়াচ এড়াতে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে স্কুল-কলেজ, বিনোদন, আমোদ-প্রমোদের ক্ষেত্রগুলি। বন্ধ করা হয়েছে সিনেমা হলও। সংক্রমণ বাড়ার কারণ হিসেবে কী বলছেন চিকিৎসক মহল? ভিনদেশ থেকে পর্যটকদের কারণেই বহুগুণ বেড়েছে সংক্রমণ। সংক্রমিতদের একটা বড় অংশই প্রবীণ নাগরিকরা। ফলে চিন্তা বাড়ছে কয়েকগুণ। পর্যটকদের আলাদা করে করোনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। বাড়ানো হচ্ছে নিভৃতবাসের ব্যবস্থাও। এছাড়াও দেশজুড়ে কোভিড টেস্টের ওপর জোর দেওয়া হচ্ছে। কনটেনমেন্ট জোন ও লকডাউনের আওতাধীন এলাকায় বাড়তি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। নাগরিকদের টিকাকরণের দিকেও নজর দেওয়া হচ্ছে। সব নিয়ে করোনার বাড়াবাড়িতে ফের নাজেহাল চিন।