Date : 2021-12-02

শুরু হোক বিদ্যালয়ে পঠন পাঠন

নাজিয়া রহমান, রিপোর্টার : করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে পুজোর পরেই খুলতে পারে স্কুল। সেই প্রস্তুতিও শুরু করে দিয়েছে রাজ্যের শিক্ষা দপ্তর। প্রায় দু’বছর পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আবার পঠন-পাঠন শুরু হতে পারে। দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ স্কুল । করোনা পরিস্থিতি এবং তার পাশাপাশি প্রাকৃতিক বিপর্যয় এর জেরে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে রাজ্যের বহু স্কুল। স্কুল গুলির পরিকাঠামো উন্নয়ন করতে 109,42,37,133 টাকা বরাদ্দ হয়েছে। টাকা দেওয়া শুরু হলেও এখনও অনেক স্কুলই টাকা পায়নি। রাজ্যের অনেক সরকারি স্কুলের পরিকাঠামো এতটাই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে যে বরাদ্দ অর্থ দিয়ে তা সামাল দেওয়া সম্ভব নয় বলেই মত ,অ্যাডভান্সড সোসাইটি ফর হেডমাস্টার্স এন্ড হেড মিস্ট্রেসের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক চন্দন মাইতির।

তবে পশ্চিমবঙ্গ সরকারি বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সৌগত বসুর মতে যেটুকু টাকা বরাদ্দ হয়েছে তা দিয়ে সর্বপ্রথম স্কুলের কোন কাজটা করা উচিত সেটা স্কুলকেই বুঝতে হবে।

বরাদ্দ টাকা নিয়ে যতই তরজা চলুক তবে স্কুল খোলার বিষয়ে সকলেই একমত।করোনার প্রথম ঢেউয়ের পর নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়াদের জন্য স্কুল খুলেছিল তবে আবার পরিস্থিতি বেসামাল হয়ে উঠতেই বন্ধ হয়ে যায় স্কুল। দ্বিতীয় ঢেউয়ের ভয়ঙ্করতার জন্য পড়ুয়াদের স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের লিখিত পরীক্ষা হয়নি। পরিস্থিতি হাতের মুঠোয় এলে নভেম্বরের শেষের দিকে স্কুলে ফের পঠন-পাঠন শুরু হতে পারে বলে আশাবাদী শিক্ষা দপ্তর। এবার শুধু নবম থেকে দ্বাদশ নয় নিচু ক্লাসের পড়ুয়াদের ক্লাস শুরু হতে পারে বলেই জানা গেছে।