Date : 2021-11-27

অচলাবস্থা জারি আরজিকরে – অতিমারী আইন প্রয়োগ করল রাজ্য

সায়ান্তিকা ব্যানার্জী, রিপোর্টার : কোন ভাবেই কাটছে না আরজিকরের অচলাবস্থা। বিগত বেশ কয়েকদিন ধরে বেশ কিছু দাবিতে অনশনে বসেছেন জুনিয়র ডাক্তারেরা। তাদের মূল দাবি প্রিন্সিপালের পদত্যাগ। গতকাল মোহিত মৈত্র মঞ্চে অতীন ঘোষ শান্তনু সেন সহ একাধিক বিশিষ্ট ব্যক্তি এবং আন্দোলনরত চিকিৎসকদের মধ্যে বৈঠক হলেও তা নিষ্ফলাই হয়। চিকিৎসা পরিষেবা স্বাভাবিক রাখতে আর জি করে অতিমারী আইন  প্রয়োগ করল রাজ্য সরকার। পাশাপাশি জানিয়ে দেওয়া হল, যে চিকিৎসকরা কাজে অনুপস্থিত থাকবেন তাঁদের ইন্টার্নশিপের মেয়াদ একদিন করে বেড়ে যাবে। সেই অনুযায়ী বিক্ষোভকারী ১৯২ জন জুনিয়র ডাক্তারদের ইন্টার্নশিপের মেয়াদ ১৩ দিন বেড়ে গিয়েছে। তবু নিজেদের অবস্থানে অনড় আন্দোলনরত ছাত্ররা।

অন্যদিকে উসকানিমূলক মন্তব্যের জেরে এদিন চিকিৎসক সংগঠনের দুই নেতার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের হয়েছে। ছাত্রদের কথায়, কলেজের প্রিন্সিপাল পদত্যাগ না করা পর্যন্ত এই বিক্ষোভ চলবেই। সূত্রের খবর, রোগীদের হয়রানি ঠেকাতে আউটডোরে আরএমওদের উপস্থিত থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আগামিকাল ৩৮ বিভাগের প্রধানদের সঙ্গে ফের বৈঠকের সম্ভাবনা রয়েছে। রোগী ফেরানো রুখতেও কড়া অবস্থান নিয়েছে স্বাস্থ্যভবন। রোগী ফেরালে হেল্পলাইনে ফোন করে অভিযোগ জানানো যাবে।

আর জি কর হাসপাতালের জট কাটাতে আজ হাসপাতালের মেন্টরদের জরুরি তলব করেন রাজ্যের স্বাস্থ্যসচিব নারায়ণস্বরূপ নিগম। ঘণ্টাখানেক তাঁদের সঙ্গে বৈঠক সারেন স্বাস্থ্যসচিব। তার পরেও অবশ্য সমাধান সূত্র মেলেনি।আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন জুনিয়র ডাক্তাররা। এদিন তাঁদের পাশে দাঁড়ায় স্টুডেন্টস ফোরাম, ডক্টরস ইউনিটি। বিক্ষোভস্থলে এসে পড়ুয়াদের উদ্দেশে বার্তা দেন চিকিৎসকরা। তারা জানিয়ে দেন যতক্ষণ না অবধি আন্দোলনকারীরা নিজেদের দাবি না মেটাতে পারছেন এই বিক্ষোভ চলবে।