Date : 2021-11-27

রাজ্যের বিনিয়োগ ৩৫ হাজার কোটি টাকা।সিঙ্গুরের মতো জোর করে জমি অধিগ্রহণ নয়, বিধানসভায় বললেন মুখ্যমন্ত্রী

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, রিপোর্টার: সিঙ্গুরে টাটাদের ন্যানো কারখানা গড়ার জন্য বাম আমলে জোর করে জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছিল বলে অভিযোগ ওঠে । ন্যানো কারখানা হওয়া না হওয়ার পেছনে তৈরি হয়েছিল ইচ্ছুক অনিচ্ছুক চাষি। তাই রাজ্যের যে নতুন প্রকল্প হতে চলেছে সেই প্রকল্পের জমি অধিগ্রহণ কে ঘিরে কোন রকম যাতে জলঘোলা না হয় তাই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মঙ্গলবার বিধানসভায় স্পষ্ট করে দিলেন জমি অধিগ্রহণ সংক্রান্ত বিষয় কারোর যদি কোন অভাব অভিযোগ থাকেন সেক্ষেত্রে সরাসরি তার দপ্তর এর সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন।

বীরভূম জেলার মোহাম্মদ বাজার ব্লকের অবস্থিত দেওচা পাচামি দেওয়ানগঞ্জ হরিণসিংহ কোল ব্লকে ৩হাজার ৪০০একর জমিতে প্রায় এক হাজার ১১৯৮ মিলিয়ন মেট্রিক টন কয়লা এবং প্রায় ১৪০০ মিলিয়ন কিউবিক মিটার ব্যাসল্ট ডিপোজিট রয়েছে। এই ৩৪০০ জমির মধ্যে প্রায় এক হাজার একর জমি সরকারি।

এই সমস্ত এলাকাটিতে মোট ১২ টি গ্রাম এবংসেখানে ,৪৩১৪ টি বাড়িতে ২১ হাজারেরও বেশি মানুষ বসবাস করেন। যার মধ্যে ৩৬০০ জন এসটি(SC)এবং ৯,০৩৪ জনএস টি (ST) ।
বিপুল পরিমাণে কোল রিজার্ভ সমন্বিত এই কোল ব্লক দেশের সব থেকে বড় কোল ব্লক গুলির মধ্যে অন্যতম।
এখান থেকে উত্তোলিত কয়লা শুধু এরাজ্যেই নয়, রাজ্য তথা দেশের অর্থনৈতিক উন্নতির ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে চলেছে।এই প্রকল্পের ১ লক্ষের বেশি মানুষের প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষকর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে বলেও বিধানসভায় জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশিগোটা প্রকল্পের সম্পূর্ণ কয়লা তোলার জন্য রাজ্য সরকারের বিনিয়োগ হবে ৩৫০০০ হাজার কোটি টাকা।
সমগ্র প্রকল্পটি বিভিন্ন ভাগে করা হবে।প্রথম দফায় দেওয়ানগঞ্জ হরিণসিংহ এলাকায় যেখানে কম গভীরতায় কোল ডিপোজিট আছে সেটির কাজ হাতে নেওয়া হবে।
এই প্রকল্প থেকে কয়লা তোলার প্রক্রিয়া শুরু করার আগে রাজ্য সরকারের সমস্ত স্টেক হোল্ডার দের সাথে বিস্তারিত আলোচনা করেছে যাতে তপশিলী জাতি, আদিবাসী সহ এলাকার সমস্ত মানুষের সমস্ত রকম স্বার্থ সুরক্ষিত থাকে।
রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে একটি আকর্ষণীয় প্যাকেজ চূড়ান্ত করেছে।যার মাধ্যমে জমিহারা মানুষদের যথাযত ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে।বিভিন্ন এলাকায় তাঁদের পুনর্বাসনদেওয়া হবে।প্রত্যেকে জমি এবং বাড়ি দেওয়া হবে।ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার গুলিকে পরিবার পিছু একজনের চাকুরি দেওয়া হবে এবং প্রত্যেকটি পরিবারের স্বার্থ সুরক্ষিত রাখা হবে।

ত্রাণ ও পুনর্বাসন প্যাকেজে ঠিক কি কি থাকছে একনজরে….
১-ত্রাণ ও পুনর্বাসন প্যাকেজে র মোট আর্থিক মূল্য ১০০০০ হাজার কোটি টাকা।
২-একজন ব্যক্তি যার এই এলাকায় বাড়ি জমি রয়েছে তিনি বিঘে প্রতি ১০থেকে১৩লক্ষ টাকা পাবেন।এছাড়া সিফটিং, মেন্টনেন্স আলাউন্স ইত্যাদির জন্য আর ৫ লক্ষ টাকা এবং RR কলোনিতে প্রায় ৬০০ বার্গফুটের একটি বাড়ি পাবেন।
৩- প্রায়৩০০০হাজার শ্রমিক এক বছরের জন্য পরিচর্যার কর পাবেন যা ১লক্ষ ২০হাজার টাকা।
৪- ওই এলাকায় কর্মরত প্রায় ১৬০জন কৃষি শ্রমিক এককালীন ৫০হাজার টাকা আর্থিক সাহায্য এবং ৫০০দিনের জন্য ১০০দিনের কাজও পাবেন।
তবে রাজ্যের জমি অধিগ্রহণ নিয়ে যাঁরা যাঁরা সমস্যায় পড়বেন সরাসরি যোগাযোগ করতে পারবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে।