Date : 2021-11-27

সংসদের শীতকালীন অধিবেশনের আগে, রবিবার সর্বদলীয় বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী

মাম্পি রায়, নিউজ ডেস্ক : আগামী ২৯ নভেম্বর সোমবার শুরু হতে চলেছে সংসদের শীতকালীন অধিবেশন। তার আগে রবিবাসরীয় সকালে সর্বদলীয় বৈঠক করতে পারেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সূত্রের খবর, রবিবার বেলা ১১টার সময় এই বৈঠকে হাজির থাকবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। অন্যদিকে বিকেলে বৈঠকে করবে বিজেপির সংসদীয় কমিটির সদস্যরা।

তিনটি বিতর্কিত কৃষি আইন প্রত্যাহার করে আন্দোলনকারী কৃষকদের কাছে ক্ষমা চেয়ে নেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই নিয়েও বিরোধীদের তোপের মুখে পড়তে হয়েছে মোদী সরকারকে। তারপর এই প্রথমবার সংসদে বিরোধীদের মুখোমুখি হতে চলেছে শাসকদল বিজেপি। আসন্ন শীতকালীন অধিবেশনে কৃষি আইন প্রত্যাহার একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে উঠবে বলে মত বিশেষজ্ঞদের একাংশের। বুধবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে আইন প্রত্যাহের বিল পাশ করা হবে। পরে তা পেশ করা হবে সংসদে। 

এদিকে বিতর্কিত কৃষি আইনগুলি প্রত্যাহার করলেও কৃষক আন্দোলনে রাশ টানতে পারেনি মোদী সরকার। সংসদের উভয়কক্ষেই এই আইন প্রত্যাহার করতে হবে বলে দাবি জানিয়েছে কৃষকরা। এছাড়া নূ্ন্যতম সহায়ক মূল্য সহ একাধিক দাবিতে আন্দোলন চলবে বলেও জানিয়েছে সংযুক্ত কিষান মোর্চা। দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত সংসদ অভিযান সহ একাধিক কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন কৃষকরা । 

শীতকালীন অধিবেশনে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু হতে পারে চিনা আগ্রাসন । যা নিয়ে ইতিমধ্যেই সুর চড়াচ্ছে কংগ্রেস। এছাড়া সম্প্রতি একটি স্যাটেলাইট ছবিতে দেখা গিয়েছে অরুণাচল সীমান্তে তৈরি হয়েছে একটি চিনা গ্রাম। ডোকলামের কাছে এই গ্রাম নিয়ে সুর চড়িয়েছে বিরোধীরা। এছাড়া পেট্রোল ডিজেল সহ নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রীর মূল্যবৃদ্ধি নিয়েও সংসদে সুর চড়াতে পারেন বিরোধীরা। এছাড়া ত্রিপুরায় দলীয় নেতাকর্মীদের উপর বারবার হামলা নিয়েও সরব হতে পারে তৃণমূল কংগ্রেস। মূলত এইসব বিষয়গুলি নিয়ে মোদী সরকার কোনঠাসা করতে চাইবে বিরোধীরা। বলার সুযোগ না পেলে বাদল অধিবেশনের মতো শীতকালীন অধিবেশনও বয়কট করতে পারেন তাঁরা। 

এই অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে সর্বদলীয় বৈঠক যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ হতে চলেছে।  এছাড়া সংসদে বিরোধীদের মোকাবিলায় রণকৌশল তৈরি করতে রবিবার বিকেলে পার্লামেন্টারি এক্সিকিউটিভ কমিটির বৈঠক করবে বিজেপি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে সরকার পক্ষের সাংসদরা কী বক্তব্য রাখবেন, তা নিয়েও আলোচনা হবে ওই বৈঠকে।