Date : 2022-06-26

উত্তর কলকাতার জলযন্ত্রণা

পুরভোট আসে। প্রতিশ্রুতিও মেলে। নিকাশি ব্যবস্থা সেই। বেহালই থেকে যায় উত্তর কলকাতার অলিতে গলিতে। জল যন্ত্রণায়

জেরবার হন বাসিন্দারা। হাতে আর কয়েকদিন। কলকাতা পুরভোটের অপেক্ষায় শহরবাসীরা। এবারের পুরভোট মিটলে কি

সমস্যার সমাধান হবে? অপেক্ষার দিন গুনছেন উত্তর কলকাতার বাসিন্দারা। উত্তর কলকাতার জল যন্ত্রণা দীর্ঘদিনের। একটু

বৃষ্টিতেই প্রতিবছরের চেনা জলছবি ফিরে আসে উত্তর কলকাতার বিস্তীর্ণ অংশে। ঠনঠনিয়া থেকে কলেজ স্ট্রিট, আমহার্স্ট স্ট্রিট,

এমজি রোডের জমা জলে দুর্ভোগ বাসিন্দাদের পিছু ছাড়ছে না। বৃষ্টি শুরু হলেই আতঙ্কে থাকেন স্থানীয়রা থেকে নিত্যযাত্রীরা।

জল জমলেই গাড়ি পেতেও সমস্যা হয় অফিসযাত্রীদের। হালকা বৃষ্টি হলেই হাঁটু সমান জল জমে যায় ঠনঠনিয়া এলাকায়। জমা

জলে দুর্ঘটনাও ঘটেছে বহুবার। জলের মধ্যে রিকশা থেকে পরে গিয়ে আহত হয়েছেন বহু যাত্রী। রাস্তায় জল জমলে তাই রিকশা

চালকরা ভয় পান। জল পেরিয়ে তখন হেঁটেই যাতায়াত করতে হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে পাম্প বসিয়ে জল নামানোর কাজ

চলে। কিন্তু সমস্যার স্থায়ী সমাধান হয় না। ঠনঠনিয়ার মত বৃষ্টি হলেই জল থইথই দশা হয় কলেজ স্ট্রিটে। আমফানের তাণ্ডবে

জল জমে নষ্ট হয়েছে কয়েক লক্ষ টাকার বই। জলের দরে ভেজা বই বিক্রি করেছিলেন ব্যবসায়ীরা। অভিযোগ, একটু বৃষ্টি হলেই

ছোট দোকানগুলিতেও জল ঢুকে যায়। এই গল্প প্রতিবছরের। বারবার জানিয়েও নিকাশি ব্যবস্থার উন্নতি হয়নি, দাবি

ব্যবসায়ীদের।শুধু ব্যবসায়ীরা নয়, বৃষ্টি হলেই কলেজ স্ট্রিটে যেতে রীতিমত ভয় পান ছাত্রছাত্রীরা। বইপাড়ার জল সমস্যার

সমাধানের দাবি করছেন তাঁরাও।