Date : 2022-05-25

কেঁপে উঠল পাকিস্তান

কেঁপে উঠল পাকিস্তানের একাংশ। বিসফোরণে মৃত্যু হয়েছে অন্তত ১০ জনের। সূত্রের খবর সে দেশের করাচিতে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে। জানা গিয়েছে গ্যাসের লাইন ফেটে যায় আচমকা। ওই লাইনটি নালার মধ্য দিয়ে গিয়েছে। ওই জায়গার এক অংশে রয়েছে একটি বহুতল। সেখানেই ঘটে বিসফোরণ। দুর্ঘটনার ফলে কালো ধোঁয়ায় ঢেকে যায় চারদিক। দাউদাউ করে জলতে থাকে আগুন। জানা গিয়েছে বিসফোরণের অভিঘাতে ছিন্নভিন্ন হয়ে যায় প্রচুর দেহ। দুর্ঘটনাস্থল থেকে বের করে নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতাল। মূল ঘটনাটি ঘটে করাচির শেরশাহ চক এলাকায়। বহুতলটির একাংশ ভেঙে গিয়েছে। উদ্ধারকারী বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছে মৃত ও আহতদের বের করে। ঘটনার মুহুর্ত ধরা পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। দেখা গিয়েছে ভেঙে যাওয়া বহুতলের মধ্যে থেকে দড়ি দিয়ে টেনে জখমদের বের করা হচ্ছে। এই ঘটনায় কারও হাত রয়েছে কি না, তা নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠে গিয়েছে।

অপর একটি ভিডিওয় ধরা পড়েছে অ্যাম্বুল্যান্সে করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে জখমদের। সূত্র মারফত জানা গিয়েছে ওই এলাকা থেকে জখমদের টেনে বের করে স্থানীয় বেনজির ভুট্টো হাসপাতালের ট্রমা কেয়ার ইউনিটে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই প্রায় ১০ জনকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়েছে। এর আগে বারবার বিসফোরণে কেঁপে উঠেছে পাকিস্তান। কখনও জঙ্গি সন্ত্রাসবাদী কখনওবা আত্মঘাতী হামলায় মৃত্যু হয়েছে সাধারণ মানুষের। এবারের শেরশাহ চকের এই ঘটনা কীভাবে ঘটে গেল, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। করোনা, মূল্যবৃদ্ধির মতো নানা বিষয় নিয়ে সরগরম থেকেছে ইমরান খানের সরকার৤ প্রসঙ্গত এক মার্কিন রিপোর্টে বলা হয়েছে জঙ্গি দমনে পাকিস্তান এখনও ডাহা ব্যর্থ। প্রায়ই পাকিস্তানের নাশকতা ধরা পড়ে কাশ্মীর সীমান্তে। চলতি বছরে উপত্যকায় ব্যাপক হারে ধরপাকড় করেছে ভারতীয় সেনা৤ পাশাপাশি পুলওয়ামা, কুলগামের মতো নানা জায়গায় নিকেশ করা হয়েছে বহু জঙ্গিকে। তবে কি করাচির এই দুর্ঘটনাও পরিকল্পিত। এই প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে এখন।