Date : 2022-05-25

বিবাহের ক্ষেত্রে মেয়েদের ন্যূনতম বয়স ১৮ থেকে বেড়ে ২১ বছর, প্রস্তাব পাশ হল সংসদে

মাম্পি রায়, নিউজ ডেস্ক : ২০২০ সালে স্বাধীনতা দিবসে লালকেল্লা থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ঘোষণা করেছিলেন , বিবাহের ক্ষেত্রে মেয়েদের ন্যূনতম বয়স বাড়ানোর বিষয়ে শীঘ্রই সিদ্ধান্ত নেবে তাঁর সরকার। একবছর পর সেবিষয়ে পদক্ষেপ নিল কেন্দ্র। বুধবারই সেই সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব পাশ হল সংসদে। এর ফলে বিবাহের ক্ষেত্রে মেয়েদের ন্যূনতম বয়স ১৮ থেকে বেড়ে হল ২১বছর।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছিলেন, দেশের মেয়ে-বোনেদের স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বিগ্ন সরকার। মেয়েদের অপুষ্টির হাত থেকে বাঁচাতে তাঁদের সঠিক বয়সে বিয়ের প্রয়োজন। মেয়েদের বিয়ের ঠিক বয়স কত হওয়া উচিত, তা নিয়ে আলোচনা  চলছে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সচেতন মহিলারা এই নিয়ে চিঠি লিখেছেন তাঁকে। এ বিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়ার অনুরোধও জানিয়েছেন তাঁরা। 

 এছাড়া রাজ্যসভায় নারী ও শিশুকল্যাণমন্ত্রী স্মৃতি ইরানি জানিয়েছিলেন, বিবাহের ক্ষেত্রে মেয়েদের ন্যূনতম বয়স কত হওয়া উচিত, তা পর্যালোচনার জন্য একটি টাস্ক ফোর্স গঠন করেছে কেন্দ্র। বিয়ে এবং মাতৃত্বের মধ্যে সময়ের গড় ব্যবধান, এই দুই বিষয়ের সঙ্গে স্বাস্থ্য ও পুষ্টির সম্পর্ক, জন্মের সময়ে শিশু ও মায়ের মৃত্যুর হার, সন্তানধারণ ক্ষমতা বিষয়ে বিবেচনার পর রিপোর্ট পেশ করবে ওই কমিটি। 

বর্তমানে ছেলেদের ক্ষেত্রে বিবাহের ন্যূনতম বয়স ২১বছর এবং মেয়েদের ১৮ বছর। নতুন প্রস্তাবটিকে আকার দিতে বাল্য বিবাহ এবং হিন্দু বিবাহের ক্ষেত্রেও সংশোধনী আনবে মোদী সরকার। প্রস্তাবটি দিয়েছিল নীতি আয়োগের জয়া জেটলির নেতৃত্বাধীন টাস্ক ফোর্স।  শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ভিকে পাল সেই টাস্ক ফোর্সের অন্যতম সদস্য।  এছাড়াও টাস্ক ফোর্সে ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ, মহিলা ও শিশু কল্যাণ সহ বিভিন্ন মন্ত্রকের সচিবরা।  ২০২০সালের ডিসেম্বরে একটি রিপোর্ট পেশ করেছিল টাস্ক ফোর্স। তাতে জানানো হয়েছিল, সন্তান জন্ম দেওয়ার ক্ষেত্রে মেয়েদের ন্যূনতম বয়স ২১ হওয়া উচিৎ।