Date : 2022-05-25

বিদেশের ওমিক্রনের সংক্রমণের হার দেখে কেন্দ্রের ওমিক্রন নিয়ে সতর্কবার্তা

ওয়েব ডেস্ক : কর্ণাটক  থেকে ফিরে আসা এক যাত্রীর দেহে প্রথম ধরা পড়েছিল ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট। কিছুদিনের মধ্য তা ছড়িয়ে পড়ে একাধিক রাজ্যে। দেশে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে বাড়তে ১০০ পার করেছে। শুক্রবার টাস্ক ফোর্সের তরফে জানানো হয়, বর্তমানে ব্রিটেন , ফান্সে যে বিপুল সংক্রমন দেখা যাচ্ছে তার ছোঁয়া ভারতে এসে পৌঁছলে ফের দৈনিক লক্ষাধিক মানুষ করোনা আক্রান্ত হবেন। এই পরিস্থিতিতে আরও উদ্বেগের কথা শোনাল কেন্দ্রের কোভিড টাস্ক ফোর্স। কোভিড টাস্ক ফোর্সের সদস্য ডঃ ভি কে পাল বলেন, “আমরা যদি ব্রিটেনের সংক্রমণের হার দেখি, তবে দেখা যাবে , বিপুল সংখ্যক মানুষ করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন। ভারতেও যদি একই  ধরনের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে, তবে আমাদের দেশের জনসংখ্যার কথা মাথায় রেখে দৈনিক ১৪ লক্ষ মানুষ করোনা আক্রান্ত হতে পারে। ফ্রান্সের দৈনিক ৬৫ হাজার মানুষ করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন, একই ধরনের সংক্রমণ ভারতে ছড়িয়ে পড়ল,  আমাদের জনসংখ্যার হিসাবে দৈনিক ১৩ লক্ষ মানুষ করোনা আক্রান্ত হবেন।”

ব্রিটেনে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ৮৮ হাজার, যার মধ্যে ২.৮ শতাংশই ওমিক্রন সংক্রমন। ইউরোপের সংক্রমনের হার দেখে ডঃ ভি কে পাল জানান ওই দেশ কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। সংক্রমণ এড়াতে মাস্ক ব্যবহারের ও নববর্ষ এবং বড়দিনে জমায়েত থেকে দূরে থাকার পাশাপাশি অন্যান্য কোভিড বিধি মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছে কেন্দ্র। যে হারে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়ছে, তা ডেল্টা সংক্রমণকেও ছাপিয়ে যেতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।  স্বাস্থ্যমন্ত্রকের যুগ্ম সচিব লভ আগরওয়াল বলেন,”বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে যে দক্ষিণ আফ্রিকায় ডেল্টার থেকেও দ্রুতগতিতে ছড়িয়ে পড়ছে ওমিক্রন সংক্রমণ। গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হলে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণকেও হার মানিয়ে দেবে ওমিক্রন, এমনটাই মনে করা হচ্ছে।” তিনি আরও জানান,” কোনও জেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বা পজিটিভিটি রেট বাড়তে শুরু করে, তাহলে কড়া পদক্ষেপ করতে হবেপরিোস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে স্থানীয় স্তরে ছোট ছোট এলাকাকে চিহ্নিত করে কনটেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করতে হবে।”