Date : 2022-09-30

ওমিক্রন আক্রান্তের নিরিখে শীর্ষে দিল্লি

রিমিতা রায়, নিউজ ডেস্ক : রাজ্যগুলিতে লাফিয়ে বাড়ছে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা। একধাপে যা লাফিয়ে ৫০০-র ঘরে পৌঁছে গেল। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের পরিসংখ্যাণ অনুযায়ী, দু’দিনেই ৪০০ থেকে ৫০০-এ পৌঁছে গেল দেশে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী, দেশে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৭৮-এ। রবিবারই এই সংখ্যাটি ছিল ৪২২। ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যায় মহারাষ্ট্রকে ছাপিয়ে গেল দিল্লি। দিল্লিতে ১০০ পার করে গেল ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা। রবিবার অবধি রাজধানীতে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা ৭৯ ছিল। সোমবার, এ দিন তা এক ধাক্কায় ১৪২-এ বেড়ে দাঁড়িয়েছে। সোমবার মহারাষ্ট্রে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা ১৪১। হিসেব করলে দেখা যাবে, একদিনেই ৩৭ শতাংশ বেড়েছে ওমিক্রন সংক্রমণ। তবে এর মধ্যে কিছুটা স্বস্তির খবর। আর কয়েকদিনের অপেক্ষা।

বড়দিনেই টিকাকরণ নিয়ে বড় ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্রধানমন্ত্রী জানান, দেশের ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সীদের টিকাকরণ শুরু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আগামী ৩ জানুয়ারি থেকে এই টিকাকরণ কর্মসূচি শুরু হবে। এছাড়া ১০ জানুয়ারি থেকে দেওয়া হবে করোনা টিকার প্রিকশন ডোজ। স্বাস্থ্যকর্মী এবং প্রথম সারির করোনা যোদ্ধারাই প্রথম পর্যায়ে এই প্রিকশন ডোজ পাবেন। একইসঙ্গে ষাটোর্ধ্ব নাগরিক এবং যাঁদের কোমর্বিডিটি রয়েছে, তাঁদেরও এই প্রিকশন ডোজ় দেওয়া হবে। তবে সেক্ষেত্রে তাদের চিকিৎসকদের পরামর্শ নিতে বলা হয়েছে।এদিকে, আগামী বছরই উত্তর প্রদেশ, পঞ্জাব, উত্তরাখণ্ড, গোয়া ও মণিপুরে বিধানসভা নির্বাচন রয়েছে। হাই ভোল্টেজ উত্তরপ্রদেশ ও পঞ্জাবে জোরকদমে প্রচার চালাচ্ছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলি। কিন্তু প্রচারে পথের কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে করোনা সংক্রমণ। দেশজুড়ে যে উদ্বেগের সৃষ্টি হয়েছে, সেই কারণেই নির্বাচন পিছিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। বৃহস্পতিবার দেশের করোনা পরিস্থিতি ও স্বাস্থ্যক্ষেত্রের প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে জরুরি বৈঠকে বসেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই বৈঠকেই তিনি দেশবাসীদের সতর্ক থাকার অনুরোধ করেন। এরপরই এলাহাবাদ হাইকোর্টের তরফে প্রধানমন্ত্রী ও নির্বাচন কমিশনের কাছে উত্তর প্রদেশ বিধানসভা নির্বাচন দু’মাস পিছিয়ে দেওয়ার অনুরোধ জানানো হয়।