Date : 2022-01-26

নাসার পার্কার ছুঁয়ে ফেলেছে সূর্যের করোনাকে…. সাক্ষী গোটা বিশ্ব

সূর্যের একদম বাইরের অংশকে করোনা বলে। আর সেখানেও প্রবেশ করেছে নাসার মহাকাশযান Parker। মার্কিন স্পেস এজেন্সি নাসা Parker Solar Probe শুরু করেছিল। নাসার এই অভিযানের লক্ষ্যই ছিল সূর্যকে ছুঁয়ে আসা। নাসার মহাকাশযান সূর্যের করোনাতে প্রবেশ করেছে। এই প্রথম মনুষ্যসৃষ্ট কোনও স্পেসক্র্যাফট সূর্যের বায়ুমন্ডলে প্রবেশ করেছে। গত এপ্রিল মাসেই এই ঐতিহাসিক ঘটনার সাক্ষী থেকেছিল নাসা। বিভিন্ন ডেটা পর্যবেক্ষণ, গবেষণা , পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার পরে ঘোষণা করা হয়, এই প্রথম মানুষের তৈরি কোনও মহাকাশযান সূর্যের করোনা আঞ্চলে প্রবেশ করতে পেরেছে। নাসার এই মহাকাশযান সূর্যের করোনা অ়ঞ্চলে প্রবেশ করার পর স্পেসক্র্যাফটটি অতিরিক্ত তাপ এবং বিকিরণ অনুভব করেছে। এই মহাকাশযানের ফলে সূর্যের পৃষ্ঠদেশের বিভিন্ন ক্রিয়াকলাপ সম্পর্কে জানা সম্ভব হবে বলে জানান বৈজ্ঞানিকরা।

প্রথম অভিযানে সাফল্যের পর আরও আত্মবিশ্বাসী নাসার পার্কার সায়েন্স টিম। করোনার আরও গভীর অঞ্চলে অভিযান চালাতে চায় তাঁরা। বিবিসি -র রিপোর্ট অনুসারে, নাসার এই পার্কার মহাকাশযান ২০২৫ সালের মধ্যে ফটোস্ফিয়ারের ৭ মিলিয়ন কিলোমিটারের মধ্যে পৌঁছতে পারবে। সূর্যের করোনা অঞ্চল নিয়ে গবেষণা করতে বরাবারই আগ্রহী জ্যোর্তিবিঞ্জানীরা। heliophysics science division – এর ডিরেক্টর নিকোলা ফক্স জানিয়েছেন, সূর্যকে ছুঁতে পারার এই ঘটনা মানবজাতির জন্য বিশাল একটা সাফল্য। চাঁদে অবতরণের ফলে বিজ্ঞানীরা যেমন চন্দ্রপৃষ্ঠ সম্পর্কে অজানা সব তথ্য জানতে পেরেছিলেন, ঠিক তেমনই সূর্যকে ছুঁয়ে আসার পর পৃথিবীর সবচেয়ে কাছে থাকা এবং সৌরমন্ডলের সবচেয়ে জনপ্রিয় নক্ষত্র সম্পর্কে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানা সম্ভব হবে।