Date : 2022-01-26

মুকুলদের বিধায়কপদ খারিজ মামলায় সাতদিন সময় দিলেন অধ্যক্ষ। দাবি মেঘালয় কংগ্রেসের।

সঞ্জু সুর, রিপোর্টার : মেঘালয়ে সদ্য তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেওয়া কংগ্রেস বিধায়কদের বিরুদ্ধে দলত্যাগ বিরোধী আইন লাগু করার জন্য সে রাজ্যের বিধানসভার অধ্যক্ষের কাছে পিটিশন দাখিল করলো মেঘালয় কংগ্রেস। মুকুল সাংমা সহ মোট দশ জনের বিরুদ্ধে এই পিটিশন দাখিল করা হয়েছে। সূত্রের খবর, নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করে জানানোর জন্য অধ্যক্ষ “মেতবা লিংডো” সাত দিন সময় দিয়েছেন।
মেঘালয়ের প্রাক্তণ মুখ্যমন্ত্রী মুকুল সাংমা সহ মোট ১২ জন কংগ্রেসের বিধায়ক সদ্য দল ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন। প্রথমে শিলং ও পরে কলকাতায় এসে সাংবাদিক সম্মেলন করে নিজেদের দল ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদানের বিষয়টি জানিয়েছিলেন মুকুল সাংমা।

কলকাতায় গত ২৯ তারিখ তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক‌ও করেন তাঁরা। পরেরদিন দক্ষিণ কলকাতার একটি হোটেলে তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও তৃণমূল রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সির উপস্থিতিতে আনুষ্ঠানিক সাংবাদিক সম্মেলন ও করেছেন মুকুল সাংমারা। এদিকে ২৯ তারিখেই মুকুল সাংমাদের বিধায়ক পদ খারিজের জন্য মেঘালয় বিধানসভার অধ্যক্ষের কাছে পিটিশন দাখিল করেছেন মেঘালয় প্রদেশ কংগ্রেসের পরিষদীয় দলনেত্রী “ডঃ এম আমপারিন লিংডো।” শ্রীমতি লিংডোর মতে, অধ্যক্ষ এই বিষয়ে (মুকুল সাংমাদের বিধায়ক পদ খারিজ) সদর্থক ভূমিকা গ্রহণ করেছেন। লিংডো মনে করেন ভারতীয় সংবিধানের দশম অধ্যায়ে দলত্যাগ বিরোধী যে আইন রয়েছে সেই আইন মোতাবেক মুকুল সাংমা সহ দলত্যাগী সব বিধায়কের বিধায়ক পদ খারিজ হ‌ওয়া উচিৎ। তবে মোট ১২ জন বিধায়ক দল ছাড়লেও মুকুল সাংমা সহ দশজন বিধায়কের সদস্যপদ খারিজের জন্য অধ্যক্ষের কাছে আবেদন জানিয়েছেন কংগ্রেস পরিষদীয় দলনেত্রী। অবশ্য তিনি এটাও জানিয়েছেন যে বাকি দুই বিধায়ক চার্লস পোংলোপ ও চিকলাং পালের বিরুদ্ধেও এক‌ই ধারায় পিটিশন দাখিল করা হবে। মেঘালয় কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বিধায়ক পদ খারিজের যে আবেদন ওই রাজ্য বিধানসভার অধ্যক্ষের কাছে করা হয়েছে সেই বিষয়ে মুকুল সাংমা বা দলত্যাগী অন্য বিধায়কদের কোনো বক্তব্য এখনো পাওয়া যায় নি।