Date : 2022-01-26

তৃণমূলের ইস্তাহার, ইস্তাহারে প্রাধান্য পরিবেশ ও জল জমার সমস্যা

সঞ্জু সুর, রিপোর্টার : তৃণমূলের ইস্তাহার

১) জল জমা সমস্যার স্থায়ী সমাধান
২) শহরের হেরিটেজ সংরক্ষণ
৩) পরিবেশ বান্ধব শহর
৪) ওভারহেড কেবল মুক্ত শহর
৫) পর্যাপ্ত পানীয় জল

মূলতঃ এই পাঁচটি ইস্যুকে সামনে রেখেই কলকাতা পুরসভা নির্বাচনের ইস্তাহার প্রকাশ করতে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস।
জল জমা শহর কলকাতার একটা পুরানো সমস্যা। প্রতি বর্ষায় উত্তর কলকাতার আর্মাস্ট্রীট, ঠনঠনিয়া, সেন্ট্রাল এভিনিউ নদীর চেহারা নেয়। দক্ষিণে বাঘাযতীন, আলিপুর, বেহালাতেও এক‌ই সমস্যা। কলকাতার ভূপ্রকৃতিগত অবস্থান‌ই এর মূল কারণ বলে একাধিকবার জানিয়েছেন বিভিন্ন বিশেষজ্ঞরা। এবার এই সমস্যা থেকে স্থায়ী মুক্তির উপায় বের করাই নিজেদের চ্যালেঞ্জ হিসাবে নিতে চাইছে তৃণমূল। তাই ইস্তাহারে এই বিষয়টিকে অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে।
দ্বিতীয় যে বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে চিন্তা ভাবনা করছে তৃণমূল কংগ্রেস সেটা হল কলকাতা শহরকে দিল্লি না হতে দেওয়া। এই প্রথম তৃণমূলের ইস্তাহারে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে পরিবেশের বিষয়টিকে রাখা হচ্ছে। দেশের মেট্রোপলিটন শহরের মধ্যে পরিবেশ দূষণে দিল্লি এক নম্বরে। সেখানে সাধারন দিনে মানুষের শ্বাসকষ্ট রীতিমতো পীড়াদায়ক অবস্থায় পৌঁছেছে। দিল্লি শহরের পরিবেশ দূষণ নিয়ে সুপ্রিমকোর্ট পর্যন্ত মন্তব্য করেছে। কলকাতা শহর এখনো ততটা খারাপ অবস্থায় না পৌঁছালেও অবস্থা ক্রমশঃ খারাপ হচ্ছে। তাই এখন থেকেই এই বিষয়ে পদক্ষেপ করতে চায় তৃণমূল কংগ্রেস। যার জন্য ইতিমধ্যেই রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বৈঠক সেরেছেন শহরের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ যাত্রী পরিষেবা প্রদানকারী বিভিন্ন অটো ইউনিয়নের সঙ্গে। অটো ইউনিয়নগুলোকে জানানো হয়েছে জৈব জ্বালানির ব্যবহার বন্ধ করে ব্যাটারি চালিত অটোর দিকে ঝুঁকতে। এখন থেকেই সেই দিকে যেন নজর দেয় অটো মালিকেরা। কার্বন নিঃসরণ যে সব যানবাহনে বেশি হয়, সেই সব যানবাহন ধাপে ধাপে কমিয়ে ফেলাই সরকারের লক্ষ। আর এই কাজে কলকাতা পুরসভাও সমানভাবে এগিয়ে আসতে চায়।

তৃতীয়ত, দৃশ্য দূষণ থেকে শহর কে মুক্ত করা। এই কাজের অঙ্গ হিসাবে প্রথমেই ওভার হেড কেবল বা বিদ্যুতের তার সরানো হবে। পাশাপাশি যেখানে সেখানে বিজ্ঞাপনী বোর্ড না রেখে শহরের নির্দিষ্ট স্থানে বিজ্ঞাপন দেওয়ার জায়গা করা হবে, যাতে বিজ্ঞাপনদাতারা সেইখানেই বিজ্ঞাপন দিতে পারে। চতুর্থ বিষয়টি হলো শহরের প্রতিটা বাড়িতে পর্যাপ্ত নলবাহিত পানীয় জল পৌঁছে দেওয়া। বেহালা, মধ্য কলকাতা ও পশ্চিম কলকাতার মানুষের একটা বড় অভিযোগ পুরসভার পানীয় জলের কলে জলের স্পীড বা ফোর্স খুব কম। এটা থেকে পুরবাসীকে মুক্তি দেওয়ার জন্য এবার আবার ক্ষমতায় এলে পর্যাপ্ত পানীয় জল পৌঁছে দেওয়া হবে বলে ইস্তাহারে উল্লেখ থাকবে। আরো যে বিষয়টি ইস্তেহারে স্থান পেতে পারে তা হলো শহরের হেরিটেজ স্থানগুলোকে সংরক্ষণ করা। সেই সঙ্গে গত দুই দফায় (২০১০ থেকে ২০১৫ এবং ২০১৫ থেকে ২০২০) কলকাতা পৌরবোর্ডে থাকাকালীন যে যে কাজগুলো করেছে তার ওয়ার্ডভিত্তিক তালিকা প্রকাশ করা হবে। ইস্তাহারে শেষ মূহুর্তে কিছু নতুন কিছু যোগ করা হতে পারে। তবে যা কিছুই হোক না কেন, তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সম্মতিতেই পুরো ইস্তাহার তৈরি করা হচ্ছে। সূত্রের খবর খুব শীঘ্রই কলকাতা পুরসভা নির্বাচনের জন্য তৃণমূল কংগ্রেস তাদের নির্বাচনী ইস্তেহার প্রকাশ করবে।