Date : 2022-10-05

সুপ্রিম কোর্টের সামনে আগুন ধরিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা

তথাগত চ্যাটার্জি, নিউজ ডেস্ক : দেশের শীর্ষ আদালতের সামনে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন এক ব্যক্তি। এই ঘটনায় গুরুতর জখম হয়েছেন ওই ব্যক্তি। স্বভাবতই এই কাণ্ডে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৄষ্টি হয়েছে। জানা গিয়েছে বছর পঞ্চাশের ওই ব্যক্তি সুপ্রিম কোর্টের নতুন ভবনের সামনে গায়ে আগুন ধরিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। যথারীতি তাঁর প্রবল চিৎকার শুনে ছুটে আসেন স্থানীয় লোকজন। সেইসঙ্গে ছুটে আসে নিরাপত্তারক্ষীরা ও পুলিশ কর্মীরা। পুড়ে ঝলসে যাওয়া ওই ব্যক্তিকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। অগ্নিদগ্ধ ওই ব্যক্তির অবস্থা সঙ্কটজনক বলে জানা গিয়েছে। কিন্তু কেন এমন কাজ করতে গেলেন ওই ব্যক্তি। এই সংক্রান্ত বহু প্রশ্নেরই উত্তর খুঁজতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। সূত্র মারফত জানা গিয়েছে অগ্নিদগ্ধ ওই ব্যক্তি নয়ডার বাসিন্দা। ভিডিওতে ধরা পড়েছে গোটা ঘটনাটি। তাতে দেখা গিয়েছে নিজের গায়ে আগুন ধরিয়ে দিচ্ছেন ওই প্রৌড়।

পরক্ষণেই দেখা গিয়েছে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে কাতরাচ্ছেন তিনি। সেই সময় স্থানীয় মানুষজন ও পুলিশ কর্মীরা তাঁকে উদ্ধার করতে এলে কথাও বলতে শোনা গিয়েছে ওই ব্যক্তিকে। জানা গিয়েছে তিনি অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় তিনি জানিয়েছেন, অত্যন্ত দরিদ্র পরিবার থেকে উঠে এসেছেন তিনি। দু-বেলা খাবার সংস্থানের জন্য দিশাহারা অবস্থা তাঁর। পরিবারের অন্যান্যদেরও একই অবস্থা বলে জানিয়েছেন তিনি। এই চরম অর্থকষ্ট থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্যেই আত্মহননের পথ বেছে নিতে হয়েছিল বলে জানিয়েছেন তিনি। তবে তাঁর বক্তব্যকে ঘিরে একাধিক ধোঁয়াশা রয়েছে। ওই ব্যক্তি গায়ে আগুন দেওয়ার সময়ে ঘটনাটি কেন কারও চোখে পড়ল না। কেনই বা দেশের শীর্ষ আদালতের সামনের অঞ্চলকেই আত্মহননের জন্য বেছে নিলেন তিনি। তবে কি বিচার ব্যবস্থাকে কটাক্ষ করতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি। পাশাপাশি সরকারের বিরুদ্ধেও কি তাঁর কোনও ক্ষোভ ছিল। যার জেরেই এই চরম সিদ্ধান্তের রাস্তা বেছে নিতে হয় তাঁকে। সূত্র জানাচ্ছে সুপ্রিম কোর্টের সামনে আত্মঘাতী হওয়ার ঘটনা এই প্রথম নয়। জানা গিয়েছে গত ছ-মাসের মধ্যে এই নিয়ে দ্বিতীয়বার কোনও ব্যক্তি শীর্ষ আদালতের সামনে আত্মঘাতী হওয়ার চেষ্টা করলেন। এই ঘটনার নেপথ্যে ঠিক কী কারণ থাকতে পারে তা জানতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ-প্রশাসন। পাশাপাশি অগ্নিদগ্ধ ব্যক্তির চিকিৎসার দিকেও খেয়াল রাখা হয়েছে।