Date : 2022-05-28

অত্যাধিক সাজগোজই কি অবাঞ্ছিত ব্রণর অন্যতম কারণ!

রিমা দত্ত, নিউজ ডেস্ক : সাজতে কে না ভালোবাসে? অনেকেই ভালোবাসেন সাজতে। তবে, ত্বকে ব্রণর সমস্যা বেড়ে গেলে অনেকের ধারণা, সাজতে গিয়ে অনেকেই বাজার চলতি বিভিন্ন প্রসাধনী ব্যবহার করে রূপটান করার অভ্যাস বোধ হয় এর কারণ। সত্যিই কি তাই? চিকিৎসকেরা এই বিষয়টি সমর্থন করেছেন। তাঁদের মতে, রূপটান ব্যবহারের ফলে মুখে ব্রণ এবং র‍্যাশের মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে। কারণ ব্রণ হয় মূলত দু’টি কারণে- ১) অভ্যন্তরীণ স্বাস্থ্য ঠিক না থাকলে। ২) ত্বকের বেহাল অবস্থার জন্য।

যাঁদের ত্বক অত্যন্ত ব্রণ-প্রবণ তাঁদের ত্বকের প্রতি সব সময়ই বাড়তি যত্ন নেওয়া উচিত। বেশি রূপটান ব্যবহার না করা, নিয়মিত মুখ পরিষ্কার রাখা, অ্যান্টি-অ্যাকনে ফেসওয়াশ ব্যবহার করা, ঘন ঘন মুখ স্পর্শ না করা ইত্যাদি। তাই বলে সাজগোজ করবেন না? রূপটান ব্যবহার করেও কী ভাবে ত্বক ব্রণ-মুক্ত রাখবেন রইল তার পাঁচটি সহজ উপায়।

১) ত্বক এমনিতেই ভীষণ সংবেদনশীল হয়। রূপটান ব্যবহার করলে ত্বকের উপর বাড়তি চাপ পড়ে। সেই চাপ আরও বাড়াতে না চাইলে রূপটান করুন আলতো হাতে।

২) ব্রাশ, স্পঞ্জ ইত্যাদি রূপটানে সহায়ক জিনিসগুলি প্রতি বার ব্যবহারের পর পরিষ্কার করে রাখুন। এতে পরবর্তীতে আপনার ত্বকই সুরক্ষিত থাকবে।

৩) আপনার ত্বকের ধরন অনুযায়ী রূপটান প্রসাধনী নির্বাচন করুন। খনিজ সমৃদ্ধ প্রসাধনী ব্রণ-প্রবণ ত্বকের জন্য বেশ উপকারী।

৪) ঘুমানোর আগে ত্বকের রূপটানের পাশাপাশি হালকা হাতে চোখের রূপটানও মুছে ফেলুন।
৫) উৎসব-অনুষ্ঠানে মন ভরে রূপটান করুন, তাতে ক্ষতি নেই। কিন্তু রাতে শোয়ার আগে সেই রূপটান মুখ থেকে পরিষ্কার করে নিতেও ভুলবেন না। সময় নিয়ে সঠিক পদ্ধতিতে রূপটান তুলে তার পর ঘুমাতে যান।

এই নিয়ম নিয়ম গুলো মেনে চললেই ব্রনর সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন।