Date : 2022-05-28

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ঘোষণায় ফিরল স্বস্তি

নাজিয়া রহমান, রিপোর্টার : ৩রা ফেব্রুয়ারি থেকে খুলছে স্কুল, কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়। বাজবে আবার স্কুলের ঘন্টা, ব্ল্যাকবোর্ড এর সামনে ফের শুরু হবে অফলাইন পঠন-পাঠন। সোমবার স্কুল খোলার নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণার পরেই স্বভাবতই স্বস্তি ফিরেছে রাজ্যবাসীর মনে। মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণার পরই নির্দেশিকা জারি করেছে শিক্ষা দপ্তর। মঙ্গলবার থেকেই স্যানিটেশনের কাজ হবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে। কোভিড বিধি মেনে যাতে ক্লাস হয় সে-নিয়েও স্কুল গুলিকে নির্দেশিকা পাঠিয়েছে শিক্ষা দপ্তর। ২০২১ সালের ১৬ ই নভেম্বর খুলে ছিল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ফের করোনার তৃতীয় ঢেউ তার প্রভাব বিস্তার করতে শুরু করে। সংক্রমণ রুখতে এবং পড়ুয়াদের কথা মাথায় রেখেই বন্ধ করে দেওয়া হয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তবে চিকিৎসকদের মতে, করোনার সংক্রমণ অনেকটাই নিম্নমুখী। তাই এবার খোলা যেতে পারে স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় এমনটাই মত বিশেষজ্ঞ মহলের। বেশ কিছুদিন ধরেই বাম ছাত্র যুব সংগঠন সহ একাধিক ছাত্র সংগঠন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার দাবি জানায়। বিকাশ ভবন অভিযানের পাশাপাশি রাজ্য জুড়ে বিক্ষোভ প্রদর্শিত করেছে ছাত্র সংগঠনগুলো হয়েছে।সোমবার সাংবাদিক সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান ৩রা ফেব্রুয়ারি থেকে খুলবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। আপাতত অষ্টম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত স্কুলে হবে ক্লাস।  কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, পলিটেকনিক-সহ অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রেও নিয়ম একই নিয়ম বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী।

31 শে জানুয়ারি রাজ্য জুড়ে আইন অমান্য কর্মসূচির ডাক দিয়েছিল এসএফআই। ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী এদিন রাজ্য জুড়ে বিক্ষোভ দেখায় এসএফআইয়ের সদস্যরা। কলেজ স্ট্রিটে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে জামায়াত করে এসএফআইয়ের সদস্যরা। সেখান থেকে পদযাত্রা করে কলেজ স্ট্রীট মোড় পর্যন্ত যায়।

যাবার সময় প্রেসিডেন্সির গেটের সামনে বিক্ষোভ দেখায় তারা এবং গেট খুলে ভেতরে প্রবেশ করেও বিক্ষোভ দেখায় এসএফআইয়ের সদস্যরা। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার দাবিকে নিয়ে দীর্ঘক্ষন কলেজস্ট্রিট মোড় অবরোধ করে রাখে। তবে মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণার কিছুক্ষণ পরেই অবরোধ তুলে নেই এসএফআই। তাদের আন্দোলনের চাপে পড়ে সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলেই দাবি এসএফআই-র সদস্যদের। সরকারের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ঘোষণা আংশিক জয় হিসেবে দেখছে এসএফআই। লাল আবির খেলে জয়ের আনন্দ উদযাপন করে এসএফআই-র সদস্যরা। বিজয় মিছিলে শামিল হয় তারা।