Date : 2022-10-03

আফগানিস্তানে খুলতে চলেছে বিশ্ববিদ্যালয়

তথাগত চ্যাটার্জি, নিউজ ডেস্ক : অবশেষে বহু বাধা বিপত্তির পরে আফগানিস্তানে খুলতে চলেছে বিশ্ববিদ্যালয়। ২০২১ সালে আফগানিস্তানের শাসক দলের ভিতকে নাড়িয়ে দিয়ে সে দেশের দখল নিতে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল তালিবান। একে একে বহু প্রদেশের দখল নিতে নিতে তালিবরা দখল করে নেয় রাজধানী কাবুলও। পুরোপুরি তালিবান রাজ শুরু হয়ে যাওয়ায় ফের রুদ্রমূর্তি ধরে তালিবান শাসকরা। নারীদের শিক্ষা ব্যবস্থায় কোপ পড়ে। এছাড়াও সোশ্যাল মিডিয়ায় স্বাধীনতা, সংস্কৃতিক জীবন যাপনেও যার ব্যাপক প্রভাব পড়েছিল। তবে অতীতের বাধা কাটিয়ে এবার আফগানিস্তানের বিশ্ববিদ্যালয়গুলি খোলা হবে বলে ঘোষণায় জানিয়েছে তালিবান। তবে এই বিষয়টিকে ঘিরেই প্রশ্ন উঠছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের দরজা খুলে দেওয়া হলেও মেয়েদের পড়াশোনায় কবে শিলমোহর দেওয়া হবে তা নিয়ে বড়সড় প্রশ্ন উঠেছে। সূত্রের খবর আফগানিস্তানের শিক্ষামন্ত্রী শেখ আব্দুল বাকি হাকানি সাংবাদিক সম্মেলনে জানিয়েছেন, আগামী ২ ফেব্রুয়ারি থেকে খুলে দেওয়া হবে সে দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলি। এর আগে ছেলে ও মেয়েদের আলাদাভাবে পড়াশোনা করার নিদান দিয়েছিল তালিবান। জানা গিয়েছে ইতিমধ্যেই সে দেশের বেশিরভাগ উচ্চবিদ্যালয় খুলে দেওয়া হয়েছে। তবে সেখানে শুধু ছাত্রদেরই পড়াশোনা করার অনুমতি মিলেছে। ফলে মেয়েদের স্কুল কবে খুলবে এই বিষয়টি নিয়েও প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। করোনা পরিস্থিতিতে আফগানিস্তানের অর্থনৈতিক পরিকাঠামোর ভিত নড়বড়ে হয়ে গিয়েছিল। অতিমারি আবহে সে দেশে চরম খাদ্য সঙ্কট দেখা দিয়েছিল বলেও জানা গিয়েছে। বিপদের হাত থেকে পরিত্রাণ পেতে বিশ্বের ক্ষমতাসম্পন্ন দেশগুলির থেকে সাহায্য চেয়েছিল তারা। তালিবানের রুদ্ররোষ থেকে বাদ যায়নি সে দেশের খেলোয়াড় থেকে কৌতুক শিল্পীরা। প্রাণভয়ে আফগানিস্তান ছা়ড়তে কাবুল বিমানবন্দরে ভিড় করেছিলেন হাজার হাজার মানুষ। অন্য দেশে ঠাঁই নিয়েছিলেন আফগানিস্তানের জাতীয় দলের মহিলা খেলোয়াড়েরা। দেশে সব রকমের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, গান-বাজনা বন্ধ করে দিয়েছিল তালিবানরা। একইসঙ্গে কোপ পড়েছিল সংবাদমাধ্যমের ওপরে। ভারতীয় এক চিত্র সাংবাদিককে গুলি করে খুন করার ঘটনায় নড়ে বসেছিল গোটা বিশ্ব। তালিব রোষে পড়ে কাজ হারাতে হয়েছিল প্রচুর সাংবাদিককে। সব মিলিয়ে এখনও সে দেশের নারী শিক্ষায় কবে পাকাপাকিভাবে ছাড়পত্র মিলবে তা এখনও অনিশ্চিত।