Date : 2022-05-27

রুশ তাণ্ডবে ধ্বংস হল ইউক্রেনের বিমান

তথাগত চ্যাটার্জি, নিউজ ডেস্ক : ক্রমেই রাশিয়া-ইউক্রেন পরিস্থিতি জটিল হয়ে উঠছে। ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরু করার পর থেকেই ধীরে ধীরে ছবির মতো সুন্দর ইউক্রেন দেশটার মানচিত্রটাই বদলে দিতে চাইছে পুতিন বাহিনী। পূর্ব ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরু করার পরে ধীরে ধীরে রুশ ব্যাটালিয়ান এগিয়ে গিয়েছে খারকিভ, কিভের মতো ইউক্রেনের নানা জায়গায়। রাশিয়া সেনার তাণ্ডবে ইউক্রেনের পথেঘাটে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে ধ্বংসের চিহ্ণ। এবার সামনে এল আরও এক ভয়ঙ্কর তথ্য। সূত্রের মারফত জানা গিয়েছে, রুশ ক্ষেপণাস্ত্রের তাণ্ডবে প্রায় ধ্বংস হয়ে গিয়েছে ইউক্রেন তথা বিশ্বের সবচেয়ে বড় বিমান। ওই বিমানের নাম ছিল এ এন ২২৫ ম্রিয়া। ইউক্রেনে ম্রিয়া শব্দের মানে স্বপ্ন। তবে মারমুখী রুশ সেনার আগ্রাসনের সামনে সেই স্বপ্নই কার্যত ভেঙেচুরে গিয়েছে। এই বিমানটি বিশেষ পণ্যবাহী বিমান বলে পরিচিত ইউক্রেনে। সূত্রের খবর, আন্তনোভ নামে এক সংস্থা তৈরি করেছিল ওই বিশাল বিমানটি। তবে রুশ সেনার ক্ষেপণাস্ত্রে দাউদাউ করে জলে ওঠে ওই বিমানটি। ইতিমধ্যেই বেলারুশ প্রদেশে দুই দেশ আলোচনায় বসেছে বলে জানা গিয়েছে। তবে আলোচনায় যুদ্ধ থামবে কি না তা স্পষ্ট নয়। তবে ইউক্রেন প্রশাসনের থেকে জানানো হয়েছে যে ওই বিমানটিকে নতুন করে গড়ে তোলা হবে। রাশিয়ার তাণ্ডবের বিরুদ্ধে পথে নেমেছে ইউক্রেনের সাধারণ মানুষ। ১৮ থেকে ৬০ বছর বয়সী মানুষদের দেশ ছাড়তে নিষেধ করা হয়েছে সরকারের তরফ থেকে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি দেশ না ছেড়ে রুশ বাহিনীর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার বার্তা জানিয়েছেন। রাশিয়ার বিরুদ্ধে রাজপথে নেমেছে সর্বস্তরের মানুষজন। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই কদিনের মধ্যেই ভাইরাল হয়ে গিয়েছে অসংখ্য ছবি ও ভিডিও যা দেখে ইউক্রেনে অবিলম্বে যুদ্ধ থামানোর কথা বলেছে নেটাগরিকরা। তবে দু-দেশের মধ্যে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ কবে থামবে সেটাই দেখার।