Date : 2022-05-27

ষষ্ঠ বিমানে ২৪০ ভারতীয়কে ফেরানোর ব্যবস্থা

ইউক্রেনের চারিদিকে এখন পোড়া বারুদের গন্ধ। চারিদিকে পরে রয়েছে ধ্বংসস্তূপ। সেদেশে আটকে রয়েছে বহু ভারতীয়। তার মধ্যে বেশিরভাগটাই ডাক্তারি পড়ুয়া। সেদেশ থেকে ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনতে বেশ বেগ পেতে হচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকারকে। জানা গিয়েছে, যুদ্ধ বিধ্বস্ত ইউক্রেনে আটকে পড়েছেন প্রায় ১৮ হাজার ভারতীয় নাগরিক। তাদের ফিরিয়ে আনতে বদ্ধপরিকর দেশ। প্রধনমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আশ্বাস দিয়েছেন, ভারতীয় পড়ুয়াদের সুরক্ষা এবং তাঁদের দেশে ফেরানোর উপর গুরুত্ব আরোপ করা হবে। ধাপে ধাপে আটকে পড়া ভারতীয়দের নিয়ে দেশে ফেরানো হচ্ছে।

সোমবার সকালেই পঞ্চম বিমান ফিরেছে দেশে। রোমানিয়ার বুখারেস্ট থেকে এসে দিল্লি বিমানবন্দরে নামে বিমানটি। এই দফায় প্রায় আড়াইশো জন ভারতীয়কে আনা হয়েছে। এদিনই আবার ষষ্ঠ বিমানে দেশে ফিরবে ২৪০ যাত্রী।ইউক্রেনের আকাশসীমা বন্ধ বলে প্রতিবেশী দেশ পোল্যান্ড, রোমানিয়া, হাঙ্গেরি, স্লোভাকিয়া হয়ে ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনা হচ্ছে। অন্যদিকে গুজরাটের প্রায় ১০০ জন ছাত্রকে সোমবার সকালে মুখ্যমন্ত্রী ভূপেন্দ্র পটেল স্বাগত জানিয়েছেন। এই ছাত্ররা ইউক্রেন থেকে মুম্বই ও দিল্লিতে নেমেছিল । ইউক্রেনের যুদ্ধ পরিস্থিতি কপালে ভাঁজ ফেলছে কেন্দ্রের। ইউক্রেনে আটকে পড়া ভারতীয়দের নিয়ে অত্যন্ত চিন্তিত ভারত। রবিবারের পর এই পরিস্থিতিতে উচ্চপর্যায়ের বৈঠকে বসলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। রাতের বৈঠক শেষ হতেই সোমবার সকালে ফের আরও একবার বৈঠকে বসলেন প্রধানমন্ত্রী। সরকারি সূত্রে খবর, আটকে থাকা ভারতীয়দের নিরাপদে দেশে ফিরিয়ে আনাই এখন মূল কর্তব্য। এমনকী এই কাজে ইউক্রেনের প্রতিবেশী দেশগুলিতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদেরও পাঠানো হতে পারে। এই মন্ত্রীদের তালিকায় রয়েছেন কেন্দ্রীয় অসামরিক উড়ানমন্ত্রী জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী এবং কিরণ রিজিজু।