Date : 2022-10-06

খুলল স্কুল। স্কুল খোলায় খুশি পড়ুয়া থেকে অভিভাবক

নাজিয়া রহমান, রিপোর্টার : মাস খানেক পর ফের খুলল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। বাজল স্কুলের ঘন্টা। ২০২১ এর ১৬ নভেম্বর খুলেছিল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। কিন্তু করোনার তৃতীয় ঢেউ-এ সংক্রমণের হার ক্রমশ বৃদ্ধি পাওয়ায় ফের বন্ধ হয়ে যায় স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়। কড়া বিধিনিষেধ লাগু করে রাজ্য সরকার। তবে সংক্রমণ খানিকটা আয়ত্তে আসতেই শিথিল হতে থাকে নিষেধাজ্ঞা। একই সঙ্গে স্কুল খোলার দাবি উঠেছিল ছাত্র সংগঠন, শিক্ষক সংগঠন সহ বিভিন্ন মহল থেকে। পরবর্তীতে ৩ ফেব্রুয়ারি থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার কথা ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মুখ্যমন্ত্রী ঘোষনা অনুযায়ী বৃহস্পতিবার তথা ৩ রা ফেব্রুয়ারি থেকে খুলে গেল রাজ্যের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলি।স্বাভাবিকভাবেই বহুদিন পর ফের সহপাঠীর পাশে বসে অফলাইনে লেখাপড়া করতে পেরে খুশি পড়ুয়ারা।তবে প্রত্যেককেই কঠোরভাবে মানতে হচ্ছে করোনা বিধি। মাস্ক, স্যানিটাইজার ব্যবহার বাধ্যতামূলক। মানতে হচ্ছে শারীরিক দূরত্ব। তবে এখন অষ্টম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির ক্লাস শুরু হয়েছে অফলাইনে। কলেজ-সহ অন্যান্য উচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম। তবে প্রথম থেকে সপ্তম শ্রেণি পর্যন্ত ক্লাস হবে পাড়ায় শিক্ষালয়ে। আগামী ৭ ফেব্রুয়ারী থেকে শুরু হচ্ছে পাড়ায় শিক্ষালয়। ইতিমধ্যেই এই ক্লাসগুলি কি ভাবে হবে তার সময়সূচী প্রকাশ করেছে শিক্ষা দফতর। ৫ ফেব্রুয়ারি সরস্বতী পুজো। তার আগে চেনা ছন্দে স্কুল ফেরায় খুশি পড়ুয়ারা।

স্কুল খোলায় পড়ুয়াদের পাশাপাশি খুশি অভিভাবকেরাও। দীর্ঘ দিন স্কুল বন্ধ থাকায় তার প্রভাব পড়ছিল পড়ুয়াদের উপর। অনলাইন ক্লাসের ফলে তারা মোবাইলের প্রতি আশক্ত হয়ে পড়ছিল বলে মত অভিভাবকদের। তাই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা খুবই প্রয়োজন ছিল বলেই জানাচ্ছেন তারা। অষ্টম শ্রেণি থেকে খুলেছে স্কুল। ফলে অনেক পড়ুয়ারই এখনও ভ্যাক্সিন হয়নি। দ্রুত সব পড়ুয়ার ভ্যাকসিনেশনের ব্যবস্থা করা হলে ভালো হয় বলেই মত অভিভাবকদের।