Date : 2022-05-27

কলকাতা হাইকোর্টে ধাক্কা বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মন্ডলের

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, রিপোর্টার:- ভোট পরবর্তী মামলার পর ফের সিবিআই তলবের মুখোমুখি অনুব্রত মণ্ডল। গরুপাচার কাণ্ডের তদন্তে একাধিকবার নিজাম প্যালেসে ডেকে পাঠানো হয় তাঁকে।শেষ তাঁকে সিবিআইয়ের পক্ষ থেকে গত ২রা মার্চ মঙ্গলবার তাকে নোটিশ দেওয়া হয়েছে। যদিও শারীরিক অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে বারবারই সিবিআই তলব এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি। আগামী ১৫ মার্চ আবারও তাঁকে ফের একবার তলব করেছে সিবিআই। তবে তার আগে রক্ষাকবচের আর্জি জানিয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ অনুব্রত মণ্ডলের আইনজীবী সঞ্জীব দাঁ,সন্দীপন গাঙ্গুলি এবং রাজ্যের প্রাক্তন এডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত আদালতে বলেন অনুব্রত মন্ডলের পক্ষের আইনজীবী কিশোর দত্ত এবং সন্দীপ গাঙ্গুলি জানান কেন সিবিআই নোটিশ চ্যালেঞ্জ ।সিবিআইয়ের দ্বিতীয় নোটিশ ১৯ ১/২০২১সালে ২৪/৪/২০২১।
শারীরিকভাবে অসুস্থ এবং করোনা পরিস্থিতির জন্য আমি যেতে পারছি না বলে জানিয়েছেন তিনি।
দ্বিতীয় নোটিশ ৩/২/২০২২ ভোট পরবর্তী হিংসা মামলা নোটিশ পরিপেক্ষিতে রক্ষা কবচ দেয় হাই কোর্ট।
এর পরে তাকে আর নোটিশ দেওয়া হয়নি।
২ ফেব্রুয়ারিতে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
এর পরেও ফের নোটিশ দেয় সিবিআইয়ের পক্ষ থেকে ১৯ফেব্রুয়ারিতে।
১৮ই ফেব্রুয়ারিতে কয়লা পাচার নোটিশ দেয় সিবিআই।
৪ঠা মার্চ ফের নিজাম প্যালেসে আসার জন্য ডেকে পাঠায় সিবিআই।
আমি অসুস্থ চিকিৎসা চলছে বলে সিবিআই কে জানিয়েছিলাম।আমার পক্ষে কলকাতা য় যাওয়া সম্ভব নয়।আমি ভিডিও কনফারেন্সে করতে পারি।
অনুব্রত আইনজীবী আর বলেন অযথা হয়রানি করার জন্য সিবিআই এই কৌশল নিয়েছেন।
সিবিআইয়ের পক্ষে অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল এস বি রাজু বলেন
সিবিআই নতুন কোন মামলায় তলব করলে সেক্ষেত্রে ভাবা যেত তদন্ত চলছে কিন্তু ২০১৯সালের একটি পুরোনো মামলা য় তাঁকে ডাকা হচ্ছে।বিচারপতি প্রশ্ন এই ঘটনায় অনুব্রত মন্ডল মূল অভিযুক্ত নয়, তাহলে সিবিআইয়ের মুখোমুখি হতে সমস্যা কোথায়…।
যদি মনে হয় সিবিআই অনুব্রত মন্ডলকে গ্রেফতার করতে পারে তাহলে কেন তিনি আগাম জামিনের আবেদন করছেন না..প্রশ্ন বিচারপতি।
অনুব্রত মন্ডল তিনি একজন রাজনৈতিক নেতা বলেই কি এডভেন্টেজ নিতে চাইছেন ?? যদি তা না হয় তাহলে কলকাতা য় সিবিআইয়ের দফতরের হাজির দিচ্ছেন না? তিনি কি একদমই বাড়ির বাইরে বেরোন্ না
সিবিআইয়ের পক্ষ থেকে তলব করলেই যে অনুব্রত মন্ডলকে গ্রেফতার করে নেবেন আপনি কি করে নিশ্চিত হচ্ছেন..?প্রশ্ন বিচারপতি

বিচারপতি রাজা শেখর মান্থা মন্তব্য করে বলেনআমার মনে হয় সিবিআই যখন জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকেছেন সে ক্ষেত্রে অবশ্যই যাওয়া উচিত অনুব্রত মন্ডলের
*সিবিআইয়ের পক্ষে অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল এস পি রায় চৌধুরী জানান প্রথম নোটিশ দেওয়া হয়েছিল এপ্রিল ২০২১সালে । তখন থেকেই তিনি সিবিআইয়ের মুখোমুখি না হওয়ার জন্য নানান টালবাহানা করে আসছেন…
এর পরে ফেব্রুয়ারিতে তাঁকে নোটিশ দেওয়া হয়েছে এবং সর্বশেষ তাকে মার্চে প্রথম সপ্তাহে তাঁকে নোটিস দেওয়া হয়েছে।
কলকাতায় তিনি আসছেন না এমনটা নয় তিনি তাঁর প্রয়োজনে কলকাতায় আসেন তাহলে কেন বারবার তলব করার পর হাজির হচ্ছেন না।
সিবিআই পক্ষ থেকে অনুব্রত মন্ডলের শারীরিক পরীক্ষা নিরীক্ষা জন্য মেডিকেল বোর্ড গঠন করে দেখা উচিৎ আদতে ওনার কি কি সমস্যা হচ্ছে..
সিবিআইয়ের পক্ষের আইনজীবী এস বি রাজু অনুব্রত মন্ডল নিয়মিত সোশ্যাল মিডিয়াতে এক্টিভ রয়েছেন।সেখানে ভিডিও আপলোড করছেন। একজন অসুস্থ মানুষ কি ভাবে করতে পারেন?প্রশ্ন সিবিআইয়ের আইনজীবীর

আদালত জানতে সিবিআইয়ের কাছে গরুপাচার কাণ্ডের তদন্তের প্রক্রিয়া কোন ভাবেই কি ভার্চুয়ালি করা কি সম্ভব… অনুব্রত মামলায় সিবিআইয়ের আইনজীবী র কাছে জানতে চাইলেন বিচারপতি রাজা শেখর মান্থা
অনুব্রত মন্ডল রক্ষা কবচ পেল না।
অনুব্রত মন্ডলের আবেদন খারিজ
আদালত মনে করছেন তদন্তের প্রাথমিক স্তরে কোন ভাবেই হস্তক্ষেপ নয়।