Date : 2022-10-05

টেরাকোটা শিল্পীর হাতে তৈরি হচ্ছে বিশেষ সাইকেল। করোনা সংক্রমণের কারণে বন্ধ হয়ে গেছে কাজ। তাই দু চাকার দুনিয়ায় মনোনিবেশ শিল্পী সজল রায়ের

শাহিনা ইয়াসমিন, রিপোর্টার : সাইকেল চালাচ্ছেন রাষ্ট্রপ্রধান। বিদেশে এমন ছবি বহু দেখা যায়। সাইকেলের গুরুত্ব বোঝাতে ট্র্যাডিশনাল সাইকেলের চেহারা পাল্টে নতুন রূপের সাইকেল তৈরি করছেন এই শহরেরই একজন টেরাকোটা শিল্পী। বিদেশের রাস্তায় চলা কাসটম, ক্রুজ, রিকাম্বেন্ট, চপারের মতো সাইকেল এবার দেখা যাবে কলকাতার রাস্তায়।

টেরাকোটার কাজে বিশেষ দক্ষ। বাড়ি জুড়ে টেরাকোটার বহু কাজ। করোনা সংক্রমণের কারণে বন্ধ হয়ে গেছে কলকাতার এই প্রবীণ শিল্পীর কাজ। টেরাকোটা শিল্পী সজল রায়, তাই পেশা বদল করে মনোনিবেশ করেছেন সাইকেল তৈরির কাজে। তিনি নিজে একজন সাইকেল প্রেমীও। সল্টলেক সেক্টর ফাইভের বাসিন্দা সজলবাবু তার ছোট্ট কারখানায় তৈরি করেছেন কাস্টম, ক্রুজ, রিকাম্বেন্ট, চপারের মতো সাইকেল। বিদেশে এই সব সাইকেলের দাম ৩০ থেকে ৪৫ হাজার টাকা। এখানে সেই ধরণের সাইকেল তৈরি করতে খরচ পড়েছে ১২ থেকে ১৫ হাজার টাকা। সাইকেলকে সামনে রেখেই তাঁর ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই শুরু। এই বিশেষ ধরণের সাইকেল নজর কেড়েছে সাইকেলপ্রমীদের। প্রথাগত সাইকেলের পরিবর্তে বিদেশি স্ট্যাইলে সাইকেল তৈরি করে দেশ-বিদেশের সাইকেল প্রেমীদের কাছে পৌঁছতে চান সজলবাবু। বিদেশে ট্রাজিশনাল সাইকেলের পাশাপাশি কাস্টম, ক্রুজ, রিকাম্বেন্ট, চপারের মতো শৌখিন মডেলের সাইকেল বেশ জনপ্রিয়। কেন জনপ্রিয় এইসব সাইকেল? কারণ ট্র্যাডিশনাল বা প্রথাগত সাইকেল ভার্টিক্যাল হয়। যার ফলে চালককে সোজা হয়ে বসতে হয়। যেটা আরামদায়ক হয় না। এখন যে সব সাইকেলের ট্রেন্ড চলছে তা হল হরাইজেন্টাল আকারের। চালককে হেলান দিয়ে বসতে হয়।

চালকের ক্ষেত্রে সেটা আরামদায়ক হয়। পাশাপাশি পরিশ্রম কম হয় তার ফলে চালিয়ে আনন্দ পাওয়া যায়। বিশেষ ধরণের এই সাইকেলের প্যাডেলিং আলাদা। পিক আপ স্পিড বেশি। সজলবাবুর তৈরি সাইকেল সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। বিদেশের মাটিতে প্রশংসা কুড়িয়েছে। যেখানে সাইকেলকে অবহেলার চোখে দেখা হয় সেখানে তাঁর তৈরি সাইকেল নতুন প্রজন্মের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠবে বলে আশাবাদী সজলবাবু। সল্টলেকের সেক্টরভাইভ, রাজারহাট, নিউটাউনে সাইকেল লেন আছে। কিন্তু সাইকেল লেন গোটা শহরজুড়ে করা উচিত। পরিবেশবান্ধব যান সাইকেলকে রাস্তায় চলার অধিকার দেওয়া উচিত। সাইকেল সোশ্যাল ডিসটেন্সের পাশাপাশি ইকোনমি গ্রোথ তুলে ধরে। সাইকেলই পরিবেশকে বাঁচাবে এমনটাই মত সাইকেলপ্রেমী সজলবাবুর।