Date : 2022-10-01

নিয়োগের পরই ইস্তফা, বিতর্কীত মন্তব্য ইন্ডিয়ার সিইওর

রিমা দত্ত, নিউজ ডেস্কঃ জানুয়ারিতে এয়ার ইন্ডিয়ার মালিকানা হস্তান্তর হয়। দেনায় জর্জরিত এই সংস্থাকে নতুন রূপে গড়ে তোলার পরিকল্পনা ছিল টাটা গ্রূপের। সেই উদ্দেশ্যেই কোম্পানির নতুন সিও হিসাবে নিয়োগ করা হয় তুরস্কের ইলখার আয়চিকে।এর মধ্যেই দায়িত্ব নিতে অস্বীকার করলেন ইলখার।গত ১৪ ফেব্রুয়ারি এয়ার ইন্ডিয়ার তরফে বলা হয়,”কোম্পানির নতুন সিইও হিসাবে দায়িত্ত্ব নিতে চলেছেন ইলখার আয়চি।” আগে তুরস্ক এয়ারলাইন্সের সভাপতি হিসাবে কাজ করেছেন এই ইলখার আয়চি। এছাড়াও ১৯৯৪ সালে তিনি তুরস্কের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট তায়িপ এর্ডোয়ানের পরামর্শদাতা ছিলেন।

তুরস্কের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট তায়িপ এর্ডোয়ানের নয়াদিল্লির সম্পর্ক খুব মধুর ছিল না। বিভিন্ন বিষয়ে ভারত বিরোধী অবস্থান নেওয়ার দৃষ্টান্ত রয়েছে এর্ডোয়ানের। এই কারণেই ইলখার আয়চির নিয়োগ নিয়ে বিজেপি সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে আরএসএস। ইলখার আয়চিকে নিয়োগ করা যাবে না, এমন দাবিও জানানো হয় আরএসএসের তরফে। প্রসঙ্গত, একজন বিদেশি নাগরিককে ভারতীয় উড়ান সংস্থার সিইও হিসাবে নিয়োগ করার জন্য সরকারি ছাড়পত্র প্রয়োজন। সরকারি সূত্রে জানানো হয়েছে, “ইলখার আয়চি এবং এয়ার ইন্ডিয়াকে নিয়ে সরকার খোঁজখবর নিচ্ছে। কারণ গোয়েন্দা সংস্থার তরফ থেকে ইলখার আয়চি এবং তুরস্কের সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে।”