Date : 2022-09-30

প্রাক্তন প্রধান বিচারপতির নির্দেশে গঠিত চিটফান্ড মামলার বিশেষ বেঞ্চ থেকে নিঃশব্দে সরে গেল সমস্ত মামলা

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, রিপোর্টার:- বেয়াইনি অর্থলগ্নি সংস্থার মামলা শোনার জন্য কলকাতা হাইকোর্টের প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি একটি বিশেষ বেঞ্চ গঠন করেছিলেন।কারণ রাজ্যে বহু মানুষ তাঁরা বাড়তি কিছু টাকার জন্য তাঁরা লগ্নি করে সর্বশান্ত হয়েছিলেন।তাঁদের সুবিচারের জন্য বিশেষ বেঞ্চ গঠন করে ছিলেন তৎকালীন প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি।এবং গঠিত হয়েছিলো বিচারপতি জয়মাল্য বাগচীর ডিভিশন বেঞ্চ থেকে নিশব্দে সব মামলা সরিয়ে নিল হাইকোর্ট। অথচ বৃহস্পতিবারও বিচারপতি বাগচি এই মামলা শোনার জন্য শুনানি করতে বসেন। তখন আইনজীবীরা তাকে জানান, এদিনই ওই মামলা প্রধান বিচারপতি তার এজলাস থেকে বিচারপতি তপোব্রত চক্রবর্ত্তীর ডিভিশন বেঞ্চে পাঠিয়ে দেন। এমন ভাবে বিচারপতি বাগচীর এজলাস থেকে এই চিটফান্ডের মামলা সরানোয় বিচার প্রক্রিয়া ব্যাহত হবে বলে আশংকা আইনজীবিদের।

এদিকে গত প্রায় পাঁচ বছর ধরে হাইকোর্টের নির্দেশে রোজভ্যালি র টাকা ফেরতে গঠিত বিচারপতি দিলীপ শেঠ কমিটি র জন্য আর খরচ বহন করতে নারাজ রাজ্য সরকার। এদিন রাজ্যের তরফে আইনজীবী অমিতেষ ব্যানার্জি আদালতে জানান, যেহেতু হাইকোর্টেরই নির্দেশে বিচারপতি তালুকদার কমিটি গঠন হয়েছে। সেখানেই বহু বেয়াইনি চিটফান্ডের মামলা চলছে, তাই রাজ্য শুধু তালুকদার কমিটি চালানোর আর্থিক দায়ভার ও পরিকাঠামো র দায়িত্ব নেবে। ফলে এবার অন্য অন্তত চিটফান্ডের সঙ্গে রোজভ্যালি র মামলাও তালুকদার কমিটিতে যাবে।
রাজ্যে বেয়াইনি চিটফান্ড নিয়ে হাইকোর্টে মামলা শুরুর পর তৎকালীন প্রধান বিচারপতি মঞ্জুলা চেল্লুরের সঙ্গেই ডিভিশন বেঞ্চে বসতেন বিচারপতি বাগচি। পরবর্তীতে ২০১৫ সাল নাগাদ এই মামলা শোনার জন্য গঠিত স্পেশাল বেঞ্চেও বিচারপতি বাগচি ছিলেন। মামলাকারিদের তরফে আইনজীবী অরিন্দম দাস বলেন, চিটফান্ডের মামলা হাইকোর্টে প্রথম দিন থেকে শুনছিলেন বিচারপতি বাগচি। ফলে তাঁর এজলাস থেকে এখন এই মামলা সরালে নতুন করে অন্য বেঞ্চকে মামলা শুনে বিচার দিতেও সময় লাগবে। রোজভ্যালি র কমিটি আর না রাখতে চাওয়ার রাজ্যের সিদ্ধেন্তে মামলাকারীদের আরেক আইনজীবী শুভাশীষ চক্রবর্ত্তীর আশংকা, প্রায় ১৫ হাজার কোটির ওই কেলেঙ্কারিতে শেঠ কমিটি কিছু মালপত্র বিক্রি করে আমানতকারীদের ফেরানোর জন্য টাকা জমা করছিল। কিন্তু এবার নতুন কমিটিতে এই প্রক্রিয়া নতুন করে শুরু করতে আরও সময় লেগে যাবে।