Date : 2022-05-29

বনধের দ্বিতীয় দিনে একেবারে সচল থাকল তিলোত্তমা

সায়ন্তিকা ব্যানার্জি, রিপোর্টার : ৪৮ ঘন্টা ব্যাপী বনধের দ্বিতীয় দিনে একেবারে সচল থাকল তিলোত্তমা। সকালের দিকে কিছু বিক্ষিপ্ত অশান্তির কথা শোনা গেলেও যত বেলা গড়াল তত নিজের ছন্দে ধরা দিল কলকাতা। রাস্তায় মানুষ জনের ভিড়ও থাকল একেবারে আর পাঁচটা দিনের মতই।

সকাল বেলাতেই শোনা গিয়েছিল হালতুতে অশান্তির কথা। জানা গেছে ধর্মঘটের সমর্থনে যাদবপুরের হালতু সাঁপুইপাড়া চত্বরে মিছিল করছিল বামেরা,উপস্থিত ছিলেন সৃজন চক্রবর্তী সহ একাধিক নেতৃত্ব। তাদের অভিযোগ পুলিশ বিনা প্ররোচনায় আক্রমণ করে মারধোর করে তাদের। এরিয়া সেক্রেটারি মানস মজুমদার সমেত ৫ জন গ্রেপ্তার হন।

এছাড়াও বাঘাযতীন সহ কয়েকটা জায়গায় সাময়িক উত্তেজনা সৃষ্টি হলেও কিছুক্ষণেই তা স্বাভাবিক হয়। তারপর যত সময় এগোল ফিকে হল ধর্মঘটের ছাপ। বোঝাই গেল বনধ চলছে বলে। জীবন যাত্রা বহাল থাকল দিব্যি।

বেলা সাড়ে এগারোটা নাগাদ অন্যান্য দিনের মতই স্বাভাবিক ছিল গিরিশ পার্ক মোড়। রোজকার মতই ভিড় চোখে পড়ল শ্যামবাজার পাঁচ মাথার মোড়েও। বাদবাকি দিনের মতই ধর্মতলায় বাস ধরার জন্য যাত্রীদের অপেক্ষা ছিল।

বনধ থাকলে তার প্রভাব পড়ে ট্রেন চলাচলে। গতকাল শিয়ালদহ শাখায় কিছু কিছু জায়গায় অল্প অশান্তি হলেও মঙ্গলবার একেবারে স্বাভাবিক ছিল পরিষেবা। যাত্রীরা জানালেন তাদের কোন অসুবিধাই হচ্ছে না। রোজের মতই ভিড় ছিল ট্রেনে।

তাই বলাই যায় দ্বিতীয় দিনে বনধের প্রভাব পড়ল না কলকাতায়। কলকাতার প্রবহমান চিত্র ফের বুঝিয়ে দিল সাধারণ মানুষ আর বনধ মানে না।