Date : 2022-05-26

দোল ও হোলিতে বাড়তি নিরাপত্তা বন্দর এলাকায়

সঞ্জনা লাহিড়ী, রিপোর্টার: দোল ও হোলিকে সামনে রেখে নিরাপত্তার চাদর শহর জুড়ে। বন্দর এলাকায় বাড়তি নিরাপত্তা কলকাতা পুলিশের। চলতি সপ্তাহের শেষে দোল ও হোলি। রঙের উৎসব নিয়ে কঠোর নিরাপত্তার ব্যবস্থা কলকাতা পুলিশের। এই বছর দোলের দিন শব-ই -বরাত হওয়ায় কড়া নজরদারি শহরজুড়ে। বৃহস্পতিবার বিকেল ৬টা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত হোলিকা দহন বা চাঁচর পোড়ানোর রীতি থাকায় সেদিকে বিশেষ নজরদারি পুলিশের।

দোল ও হোলির দিন সকাল ৭টা থেকে পুলিশ কর্মীদের পথে থাকার নির্দেশ লালবাজারের। এই দু’দিন সকাল ১০টা থেকে গঙ্গার ঘাট ও বিভিন্ন পুকুর-জলাশয়ের ঘাটে বাড়তি নজর দেওয়া হবে। গঙ্গায় টহল দেবে রিভার ট্রাফিক পুলিশ। দোলের দিন সকাল ৯টা থেকে গঙ্গার ঘাট গুলিতে মোতায়েন থাকবে বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। ৯ টি ডিভিশনে মূল পিকেট থাকবে ৮৯টি। এছাড়াও পিকেটিং করা হবে আরও ২৯৩ টি জায়গায়।

তবে সব থেকে বেশি পিকেটিং থাকবে বন্দর এলাকায়। ৩ টি শিফটে কাজ করবে পুলিশ কর্মীরা। শুক্র ও শনিবার সকাল সাড়ে ৬টা থেকে চলবে প্যাট্রলিং। দোল ও হোলির দিন শহরের কোথাও কোনও বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হলে যথাযথ ব্যবস্থা যাতে নেওয়া যায় সে জন্য রাস্তায় থাকবে হেভি রেডিও ফ্লাইং স্কোয়াড। ১৮ ও ১৯ তারিখ দিনের বেলা রাস্তায় থাকবে ২৭ টি এইচ আর এফ এস। দোলের রাতে এই সংখ্যা টা হবে ১৯ টি ও হোলির রাতে ১২ টি। আরসিপি, পিসিআর ও এইচ আর এফ এস ভ্যানের পুলিশ কর্মীরা ২ টি শিফটে কাজ করবে প্রতি ডিভিশনে। এছাড়াও ২৪ ঘন্টা প্রতি থানা এলাকায় থাকবে মোটর সাইকেল প্যাট্রল।

কোনও রকম অপ্রীতিকর ঘটনা রুখতে ৪৮ টি মোটর সাইকেল প্যাট্রল ঘুরবে এই দু’দিন। এছাড়াও কলকাতা পুলিশের রিজার্ভ ফোর্স, কমান্ডো ও উইনার্স টিম থাকবে রাস্তায়। উৎসবের দিন গুলিতে সকাল থেকেই সমস্ত থানার অফিসার-ইন-চার্জ, অ্যাডিশনাল অফিসার-ইন-চার্জ ও পুলিশ কর্মীদের থানায় থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ডেপুটি কমিশনার দের নিজেদের ডিভিশনে নজর রাখতে বলা হয়েছে। কন্ট্রোল রুমকে বাড়তি নজরদারির নির্দেশ। উৎসবের দিন গুলি শহরকে সুরক্ষিত রাখতে বদ্ধপরিকর কলকাতা পুলিশ। তাই শহরকে কঠোর নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলা হচ্ছে উৎসবের দিনগুলিতে।