Date : 2022-10-02

পূর্ব অনুমোদন না থাকলে চিনা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনলাইনে করা কোর্সকে স্বীকৃতি দেওয়া হয় না। পড়ুয়াদের সতর্ক করল ইউজিসি।

নাজিয়া রহমান, রিপোর্টার:-করোনার সংক্রমণ নিম্নমুখী হতেই ছন্দে ফিরছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলি। শুরু হয়েছে অফলাইনে পঠনপাঠন। চলতি এবং আগামী শিক্ষাবর্ষের জন্যও নানা ডিগ্রি কোর্সে ভরতির প্রক্রিয়া শুরু করেছে বহু চিনা বিশ্ববিদ্যালয়। চিনে নতুন করে ভরতি প্রক্রিয়া শুরু হওয়ায় হয়তো এদেশের বহু পড়ুয়া অনলাইনে ডিগ্রি গ্রহণ করতে উৎসাহী হতে পারে বল মনে করছে ইউজিসি। তাই কোর্স চালুর আগেই পড়ুয়াদের সতর্ক করল ইউজিসির। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের তরফে একটি নোটিস জারি করে জানিয়ে দেওয়া হয়, চিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইন ডিগ্রিকে ভারতে কোনও স্বীকৃতি দেওয়া হবে না।

২০২০ সালে মারণ ভাইরাস থাবা বসিয়েছিল সারা বিশ্বে। চিনের উহান শহরেই এই ভাইরাসের আঁতুরঘর বলে গবেষকদের গবেষণায় উঠে আসে। করোনাকালে ২০২০র নভেম্বর থেকে সমস্ত ভিসা দেওয়া বন্ধ রেখেছে চিনা সরকার।সংক্রমনের হাত থেকে বাঁচতে সেই সময়ই চিনের বিশ্ববিদ্যালয়ে ভরতি হওয়া এদেশের বহু পড়ুয়াকে ফিরে আসতে হয়েছিল দেশে। এখনও চিন সরকার ভিসা দেওয়া চালু করেনি। তার ফলে এক বিপুল সংখ্যক ভারতীয় পড়ুয়ার পক্ষে চিনে ফিরে যাওয়া সম্ভব হয়নি। তবে চিনা কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে চিনা বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে ডিগ্রি কোর্সে ভরতির প্রক্রিয়া শুরু করার।

পাশাপাশি ভিন দেশের পড়ুয়ারাও অনলাইনের মাধ্যমে কোর্সগুলি করার সুযোগ পাবে বলেও সিদ্ধান্ত নিয়েছে চিন। কিন্তু ইউজিসি-র নিয়মানুযায়ী, পূর্ব অনুমোদন না থাকলে অনলাইনে করা কোর্সকে স্বীকৃতি দেওয়া হয় না। সেক্ষেত্রে কোনও পড়ুয়া চিনা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনলাইন পড়াশোনা করে ডিগ্রি গ্রহন করলে আগামীদিনে চাকরি বা উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে সমস্যায় পড়তে পারেন। তাই এই ধরনের কোর্স করার আগেই পড়ুয়াদের সতর্ক করতেই এই নোটিশ জারি ইউজিসি। ছাত্রছাত্রীদের ভবিষ্যতের কথা মাথায় রেখেই এই বিজ্ঞপ্তি জারি ইউজিসি-র। পাশাপাশি কোনও পড়ুয়া এই ধরনের কোর্স করলে তাকে সবদিক বিবেচনা করে তারপর সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরামর্শও দিয়েছে ইউজিসি।