Date : 2022-05-27

আম্বেদকর জয়ন্তীতে দাহ মনুস্মৃতি

সঞ্জনা লাহিড়ী, সাংবাদিক: দেশজুড়ে পালিত হচ্ছে বি.আর. আম্বেদকরের জন্ম- জয়ন্তী। জাত পাতের ঊর্ধ্বে গিয়ে এক নতুন ভারতের স্বপ্ন দেখেছিলেন আম্বেদকর। সেই স্বপ্নকে এক অন্য রূপ দিয়ে আম্বেদকর জয়ন্তী পালন করল বিপ্লবী শিক্ষার্থী ঐক্য।

আজ থেকে ১৩১ বছর আগে আজকের দিনেই জন্মেছিলেন ডক্টর ভীমরাও রামজী আম্বেদকর। ১৯২৮ সালে জনার্দন সদাশিব রানাপিসে প্রথম আম্বেদকর জয়ন্তী পালন করলেও আজও দেশ ব্যাপী সেই ধারা বহন করছে আপামর দেশবাসী।

বিপ্লবী শিক্ষার্থী ঐক্য সংগঠনের তরফ থেকে একটি মিছিলের আয়োজন করা হয় আম্বেদকর জন্মজয়ন্তী উপলক্ষ্যে। অ্যাকাডেমি অফ ফাইন আর্টসের সামনে থেকে এই সংগঠনের একটি মিছিল বেরোয়, যা শেষ হয় ময়দান এলাকায় বি. আর. আম্বেদকরের মূর্তির সামনে।

শুধু তাই নয়, দাহ করা হয় মনুস্মৃতি। মনুস্মৃতি বা মনুসংহিতা সমাজকে বর্ণ- বৈষম্যের বার্তা দেয় তাই বৈষম্য মুক্ত নতুন সমাজ গড়ার লক্ষ্যে মিছিল শেষে মনুস্মৃতি পোড়ানো হয়। মিছিলে ছাত্র যুবদের গলায় ছিল পরিচিত এক স্লোগান, “হাম ছিন কে লেঙ্গে আজাদী”। ভারতের মতো উন্নত প্রগতিশীল দেশে আজও সমাজে জাত পাতের বিভেদে কত-শত মানুষকে প্রাণ হারাতে হয়। কখনও পুত্রহারা হন মা আবার ভিন্ন জাতির প্রেমিক হওয়ায়, প্রেমিকা হারায় তাঁর ভালবাসা। একবিংশ শতাব্দীর ভারত এখনও সম্পূর্ণ বর্ণ- বৈষম্য মুক্ত নয় বলেই দাবি করল সংগঠনের সদস্যরা। আগামী দিনে এক উন্নত দেশ গড়ার লক্ষ্যে অনড় এই সংগঠন বলে অভিমত শিক্ষার্থীদের।