Date : 2022-05-28

রবিবারের দুপুরে ভয়াবহ আগুন ট্যাংরার ক্রিস্টোফার রোডে

সায়ন্তিকা ব্যানার্জি, সাংবাদিকঃ রবিবারের দুপুরে দাউদাউ করে জ্বলে উঠল ট্যাংরা। কিছু দিন আগেও মেহের আলি লেনের ভয়াবহ আগুনের সাক্ষী ছিল কলকাতা। আজ ফের সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি।

ক্রিস্টোফার রোডের একটি কারখানায় প্রথমে আগুন লাগে। ওই কারখানার পাশেই ঝুপড়ি এলাকা। প্রথমে ঘটনাস্থলে দমকলের ছ’টি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে যায়। কিন্তু আগুন বেড়ে যাওয়ার কারণে দ্রুত ইঞ্জিনের সংখ্যা ১০ করা হয়। ঝুপড়ির পাশের একটি কারখানাতেই প্রথম আগুন লাগে। সেই থেকেই ঝুপড়িতে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। দমকল সূত্রে খবর, ঝুপড়িতে দাহ্য পদার্থ বেশি থাকায় আগুন দ্রুত ছড়ায়।  তাই আগুন নেভাতে প্রাথমিক ভাবে সমস্যা হলেও, পরে নিজেদের গতি বাড়িয়ে আগুন নেভানোর কাজ শুরু হয়।

এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ যে খবর দেওয়া হলেও দমকল দেরিতে আসে। তারা নিজেরাই আগুন নেভানোর কাজে হাত লাগায়। একে তীব্র গরম তার ওপর আগুনের তীব্র তাপ এবং ঘিঞ্জি এলাকা হওয়ার ফলে দমকল কর্মীদের কাজের অসুবিধা হয় যথেষ্ট কিন্তু তার মধ্যেও দমকল কর্মীরা চেষ্টা করে চলেন যত দ্রুত সম্ভব আগুন নেভানোর।

মাঝে হাওয়া দেওয়ার ফলে ধোঁয়া আরও ছড়িয়ে পড়ে। গোটা এলাকা ধোঁয়ায় ধোঁয়াচ্ছন্ন হয়ে যায়। জানা গেছে আনুমানিক কয়ে লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

কিন্তু কেন এভাবে আগুন? ফায়ার লাইসেন্সের কি ব্যবস্থা ছিল? সেই সব কিছুই এখন তদন্ত সাপেক্ষ। তবে একথা বলাই বাহুল্য যে এই আগুন আরও একবার সামনে আনল কলকাতার বিপজ্জনক অবস্থাকে।