Date : 2022-05-27

রাজ্যের ১৩ হাসপাতালে ‘রেফার রোগের’ হার ৭ শতাংশ!

সায়ন্তিকা ব্যানার্জি, সাংবাদিকঃ রেফার রোগকে কিছুতেই যে বরদাস্ত করা হবে না সে কথা আগেই জানানো হয়েছিল রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে। তাই কড়া নজর রাখা হচ্ছে রাজ্যের সমস্ত সরকারি হাসপাতাল গুলোর ওপর। এবার রেফার রোগ নিয়ে সামনে এল এক বিস্ফোরক তথ্য।

সম্প্রতি রাজ্যের সমস্ত হাসপাতালের রোগী রেফারের ভিত্তিতে একটি সমীক্ষা করা হয়। ওই সমীক্ষা রিপোর্টে দেখা গিয়েছে, রাজ্যের ১৩টি হাসপাতাল ৭ শতাংশেরও বেশি রোগী রেফার করে। হাসপাতালগুলি হল হাওড়ার বাউড়িয়ার ফোর্ট গ্লোস্টার স্টেট জেনারেল হাসপাতাল, দক্ষিণ হাওড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতাল, উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁ হাসপাতাল, নৈহাটি মহকুমা হাসপাতাল, পানিহাটি মহকুমা হাসপাতাল, পশ্চিম মেদিনীপুরের ডেবরা হাসপাতাল, বিদ্যাসাগর স্টেট জেনারেল হাসপাতাল। বাঁকুড়ার খাতরা মহকুমা হাসপাতাল, মুর্শিদাবাদের কান্দি মহকুমা হাসপাতাল, নদিয়ার কৃষ্ণনগর জেলা হাসপাতাল, কোচবিহারের মাথাভাঙা মহকুমা হাসপাতাল, জলপাইগুড়ির মাল মহকুমা হাসপাতাল, কার্শিয়াং মহকুমা হাসপাতাল।

জানা যাচ্ছে হাসপাতালগুলির সুপার এবং ওই জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিককে আরও একবার নোটিস পাঠাল নবান্ন।

এই প্রসঙ্গে উল্লেখ্য সরকারি হাসপাতালের রেফার রোগ সারাতে উদ্যোগী স্বাস্থ্য দফতর। রাজ্যের মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ ও জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকদের কড়া চিঠি দিল স্বাস্থ্য দফতর। পর্যালোচনার জন্য একজন সিনিয়র IAS অফিসারকে নোডাল অফিসার নিয়োগ করেছে স্বাস্থ্য দফতর। রোগী রেফারের হার ৭ শতাংশের নিচে রাখতে চায় স্বাস্থ্য দফতর।

কিন্তু বাস্তব ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে রাজ্যের বিভিন্ন হাসপাতালই রেফার রোগ ছাড়তে পারছে না। তাই সমীক্ষাও সেই কথাই জানান দিচ্ছে৷ এবার দেখার বিষয় এর পর কি কি পদক্ষেপ নেওয়া হয় এই প্রসঙ্গে।