Date : 2022-10-03

রাজ্যে ৫ টি পৃথক ধর্ষণ মামলায় রাজ্যের রিপোর্ট তলব রিপোর্ট তলব প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চের

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক:- রাজ্যের একের পর এক বেড়ে চলা ধর্ষণ-গণধর্ষণ ধর্ষণের চেষ্টা করা মারাত্মক অভিযোগ নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে পাঁচটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হয়েছিল।
রাজ্যের মহিলাদের নিরাপত্তার প্রশ্নে প্রধান বিচারপতি ডিভিশন বেঞ্চে বিজেপির মহিলা মোর্চার পক্ষ থেকে বেশ কয়েকটি মামলা রুজু করেছিলেন।

মঙ্গলবার কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্ত ও বিচারপতি রাজর্ষি ভারদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চে শুনানি চলাকালীন বিজেপির আইনজীবী সুস্মিতা সাহা বলেন ময়নাগুড়িতে মেয়েটিকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়।এফয়াইয়ার দায়ের হয়।মেয়েটি আত্মহত্যা করার চেষ্টা করলে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অভিযুক্ত মেয়েটিকে থ্রেট করায় সে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিল।
গোপন জবানবন্দি নেওয়া হোক এবং ভিডিও গ্রাফী করা হোক।
নামখানার ঘটনায় মেয়েটিকে গ্যাং-রেপ করা হয়েছে।
১লা বৈশাখে শান্তি নিকেতনে আদিবাসী মেয়েটিকে গ্যাং-রেপ করা হয়।রাস্তায় কোনো ইলেকট্রিসিটির ব্যাবস্থা ছিল না।ঘটনা স্থল থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে কিনা।ডিএনএ নমুনা নেওয়া হয়েছে কিনা। চরক মেলা দেখে ফেরার পথে তাকে কিডন্যাপ করা হয়।

পিংলা রেপ কেসে প্রতিবন্ধী এক মহিলাকে ধর্ষণ করা হয়।তিনি থানায় গিয়ে জানান তার অত্যাচারের কথা।লোকাল প্রভাবশালী নেতা জড়িত এই ঘটনায়।মেডিক্যাল পরীক্ষা ২৪ ঘন্টার মধ্যে হয়েছিল কিনা দেখা হোক।

পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্যের এডভোকেট জেনারেল সৌমেন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায় জানান ময়নাগুড়িতে ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২২ তে ঘটনা ঘটেছে। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়।ক্যান্সিলেশিন অফ বেল প্রেয়ার করা হয়েছে। তারপর যখন তাকে ছাড়া হয়। দুজন অপরিচিত ব্যক্তি আক্রান্ত কে হুকমি দেয়।তারজন্য মেয়েটি আত্মহত্যার চেষ্টা করে বলে উল্লেখ করা হচ্ছে। নেত্রা কেসে একজন প্রতিবেশী ধর্ষণ করার অভিযোগ। গ্রেফতার হয়েছে। মেডিক্যাল পরীক্ষা হয়েছে। ক্লাস সিক্সের ছাত্রী।নামখানার ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছে অভিযুক্তকে।
মামলাকারীর একের পর এক প্রশ্নের জবাবে এডভোকেট জেনারেল জানিয়েছে ইতিমধ্যেই রাজ্য যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।
শান্তিনিকেতনের ঘটনায় গ্রেফতার হয়েছে। মেডিক্যাল পরীক্ষা হয়েছে। ১৬৪ হয়েছে।
পিংলার ঘটনায় অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রাম পঞ্চায়েত মেম্বার যুক্ত পিংলার ঘটনায়।তদন্ত করা হচ্ছে।
সব থেকেই মিডিয়ার রিপোর্টে বাড়াবাড়ি রয়েছে । এ ঘটনা স্থানে এবং আক্রান্তদের বাড়িতে ইতিমধ্যেই পুলিশ পিকেট রয়েছে। মে মাসের প্রথম সপ্তাহে মামলার শুনানি রয়েছে।