Date : 2022-05-26

আনিস মৃত্যুর রিপোর্ট পেশ করলো সিট।আদালতে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে বাবাকে

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক : আনিস খানের রহস্য মৃত্যুর প্রাথমিক তদন্ত রিপোর্ট জমা পড়ল হাইকোর্টে।মঙ্গলবার রাজ্যের এডভোকেট জেনারেল সুমেন্দ্র নাথ মুখোপাধ্যায় SIT পক্ষে মুখবন্ধ খামে ৮২ পাতার রিপোর্ট জমা দিল সিট। সেই রিপোর্ট খতিয়ে দেখবেন বিচারপতি রাজা শেখর মান্থা।

গতকাল সোমবার সিটের রিপোর্ট জমা দেওয়ার কথা থাকলেও বিচারপতি অনুপস্থিতির জন্য রিপোর্ট জমা দেওয়া সম্ভব হয়নি। কিন্তু বিচারপতির অনুপস্থিতি নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন আনিস খানের বাবা সালেম খান ।

মঙ্গলবার বিষয়টি বিচারপতির মান্থারের নজরে আনেন তৃনমূল আইনজীবী সেলের বেশ কিছু আইনজীবী।এর পরই বিচারপতি রাজা শেখর মান্থা মামলা থেকে অ্যাহতি চান। আইনজীবী শামীম আহমেদ, সভ্য সাচী চট্টোপাধ্যায়, কৌস্তব বাগচীরা বিচারপতিকে অনুরোধে নিজের সিদ্ধান্ত থেকে সরেআসার আবেদন জানান।
আইনজীবী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য বলেন, “যদি সালেম খান এরকম কিছু বলে থাকেন, আমরা তার জন্য ক্ষমাপ্রার্থী। সালেম খান একজন সাধারণ কৃষক, তার ছেলে মারা গিয়েছেন। মানসিক চাপে আছেন তিনি। তিনি আদালতের নিয়ম জানেন না। এত শিক্ষিত মানুষ তিনি নন। ভুল হলে আমরা ক্ষমাপ্রার্থী।”
এই ঘটনায় আনিস খানের বাবা সালেম খানকে হলফনামা দিয়ে ক্ষমা চাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি রাজশেখর মান্থা।

রাজ্যের এডভোকেট জেনারেল সুমেন্দ্র নাথ মুখোপাধ্যায় আনিস খানের মৃত্যুর তদন্ত গতিপ্রকৃতি নিয়ে মুখবন্ধ খামে ৮২ পাতার রিপোর্ট জমা দেন আদালতে।পাশাপাশি অ্যাডভোকেট জেনারেল সৌমেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রীয় ফরেনসিক দলের রিপোর্ট এবং পেন ড্রাইভ রিপোর্ট জমা দেন। মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী সোমবার। এর মধ্যেই আনিসের বাবা সালেম খানকে ক্ষমা চাইতে হবে।

সোমবার এজলাসে গরহাজির ছিলেন বিচারপতি মান্থার। এনিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করছিলেন আনিস খানের বাবা। এদিন আইনজীবী বিচারপতিকে জানান, “গতকাল সালেম খান বলেছেন, মুখ্যমন্ত্রীর চাপে এজলাসে বসেননি বিচারপতি রাজশেখর মান্থার।” এহেন মন্তব্যের জেরে এই মামলা থেকে সরে দাঁড়াতে চান বিচারপতি মান্থার।এডভোকেট জেনারেল এবং আইনজীবী রঞ্জন ভট্টাচার্য্য সহ বেশকিছু আইনজীবির অনুরোধে শেষ মেষ মামলাটি শুনবেন বলে জানিয়েছেন বিচারপতি রাজা শেখর মান্থা।