Date : 2022-10-02

পুরনো শত্রুতার জেরে বাঁশদ্রোণীতে গুলি, আহত ২

সঞ্জনা লাহিড়ী, সাংবাদিক: বাঁশদ্রোণীর ব্রহ্মপুরে সিন্ডিকেট সংক্রান্ত বিবাদ। একে অপরকে লক্ষ্য করে গুলি চালানোর অভিযোগ। গুলিবিদ্ধ ২। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বাঁশদ্রোণী থানার পুলিশ।

সকাল ১১ টা নাগাদ হঠাৎই গুলির শব্দ শোনা যায় ব্রহ্মপুর এলাকার পার্ল অ্যাপার্টমেন্টের একতলার একটি অফিস থেকে। পুরনো শত্রুতার জেরে গুলি একে অপরকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। আহত হয় মলয় দত্ত ও বিশ্বনাথ সিং। এদিন নিজের অফিসে ছিলেন মলয় দত্ত। পুরনো বিবাদ মেটাতে তাঁর অফিসে যান ছোটবেলার বন্ধু ও এক সময়ের ব্যবসায়িক সহকারী বিশ্বনাথ সিং ওরফে বাচ্চা। বিবাদ মেটাতে গিয়ে টাকা পয়সা সংক্রান্ত পুরনো বিবাদের প্রসঙ্গ আসতেই মলয়কে লক্ষ্য করে গুলি চালায় বাচ্চা সিং। রক্তাক্ত অবস্থা মলয়কে নিয়ে যাওয়া হয় বাঙ্গুর হাসপাতালে। পরে সেখান থেকে নিয়ে যাওয়া হয় পিজি হাসপাতালে। বিশ্বনাথ রক্তাক্ত অবস্থায় বাইক নিয়ে বাড়ি ফেরে। পরে তাঁর ছেলে তাঁকে নিয়ে যায় বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে। বর্তমানে দুজনেই চিকিৎসাধীন। সূত্রের খবর, এলাকার প্রোমোটার উত্তম মণ্ডলের কাছে দুই বন্ধু কাজ শুরু করেছিল। পরে ব্যবসায়িক বিবাদের জেরে মলয় ও বিশ্বনাথ ব্যবসা আলাদা করে নেয়। এদিন সেই বিবাদ মেটাতে চেয়ে এসেছিল বিশ্বনাথ বলে জানা গেছে। ঘটনাস্থলে যায় বাঁশদ্রোণী থানার পুলিশ। লালবাজারের গোয়েন্দা বিভাগের গুন্ডাদমন শাখার আধিকারিকরা ও সায়েন্টিফিক উইং। ফরেন্সিক আধিকারিকরাও গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করেন।

সাউথ সুবারবার্ন ডিভিশনের ডেপুটি কমিশনার খোদ ঘটনার সরেজমিনে খতিয়ে দেখেন। মোট ৪ রাউন্ড গুলি চালানো হয়। দুটি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে দেওয়ালে ধাক্কা লাগে। ঘরের দেওয়ালে কার্তুজের দাগ স্পষ্ট। ঘরের মেঝে থেকে পাওয়া গেছে কার্তুজের খোল। ঘটনায় গ্রেফতার ৩। বাঁশদ্রোণী থানা ও গুন্ডাদমন শাখা যৌথভাবে গ্রেফতার করে অভিযুক্তদের। উদ্ধার হয় ১ টি 7mm পিস্তল ও ২ রাউন্ড গুলি। ধৃতেরা হল অরিজিৎ পোদ্দার ওরফে সানি, শেখ সৈয়দ ওরফে ভিকি ও শম্ভু সর্দার। এঁদের মধ্যে ভিকি মূল অভিযুক্ত বলে পুলিশ সূত্রের খবর। ধৃতদের বুধবার আলিপুর আদালতে পেশ করা হবে। এই ঘটনার সঙ্গে আরও কেউ জড়িত কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।