Date : 2022-05-28

সন্তোষ ট্রফিতে ৪-৩ গোলে জয় বাংলার

সন্তোষ ট্রফিতে দুরন্ত জয় বাংলা ফুটবল দলের। মেঘালয়কে 4-3 গোলে হারাল রঞ্জন ভট্টাচার্যের ছেলেরা। ম্যাচের শুরু থেকেই আগ্রাসী ভাব নিয়ে খেলতে নেমেছিল বঙ্গ ব্রিগেড। ফলস্বরূপ ম্যাচের 23 মিনিটের মধ্যেই এগিয়ে যায় বাংলা দল। দিলীপ ওরাঁওয়ের পাস থেকে গোল করে যান ফার্দিন আলি মোল্লা। প্রথম কোয়ার্টারে অধিকংশ সময়ই বল পায়ে ছিল মহিতোষ, তন্মদের। 35 মিনিটে গোলের ব্যবধান বাড়ানোর সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেন দিলীপ ওড়াও। 40 মিনিটে সমতায় ফেরে মেঘালয়। খেলার কিছুটা গতির বিরুদ্ধেই গোল খেয়ে বসে বাংলা দল। সিয়াংলং গোল করে মেঘালয়কে সমতায় ফেরান। তবে 2 মিনিটের মধ্যেই ফের এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পায় বাংলা দল। দিলীপের বিষাক্ত পাস ফার্দিনের কাছে আসতেই তাঁকে ফাউল করা মেঘালয় ডিফেন্ডাররা। পেনাল্টি পায় বাংলা দল। সেই পেনাল্টি কনভার্ট করে বাংলা দলকে আবারও এগিয়ে দেন পকেট সাইজ ডাইনামাইট ফার্দিন আলি মোল্লা।

2-1 গোলে এগিয়ে থেকেই লেমন ব্রেকে যায় বাংলা দল। তবে বিরতির পর মাঠে নামতেই বিপত্তি। 46 মিনিটে সানো তারিয়াং ফের মেঘালয়কে সমতায় ফেরান। তবে গোল খেয়ে হতচকিত হয়ে পড়া নয়, বরং ফের আক্রমনে উঠতে থাকে বাংলা দল। 49 মিনিটে বাংলা দলকে এগিয়ে দেন বাংলার স্ট্রাইকার মহিতোষ রায়। তাঁর দুরন্ত গোলেই জয়ের গন্ধ পেয়ে যায় বাংলা দল। সেমির আশা জিইয়ে রাখতে গেলে এই ম্যাচ জিততেই হত বাংলা দলকে। তবে নাটক তখনও বাকি ছিল। সানো তারিয়াং গোল করে ফের মেঘালয়কে সমতায় ফিরিয়ে ম্যাচের স্কোরলাইন 3-3 করে দেয়। তবে পিকচার অভি বাকি থা। ফুটবল দেবতা বোধহয় আরও নাটক বাকি রেখেছিলেন। রঞ্জন ভট্টাচার্যের জর্জ টেলিগ্রাফে খেলা নয়নের মণি মহিতোষ রায় 69 মিনিটে আবারও গোল করে বাংলা দলকে এগিয়ে দেয়। আগুয়ান বাংলা দল আর কোনও ভুল করেননি। বাংলার কোচ রঞ্জন ভট্টাচার্য এরপর বাড়তি মিডফিল্ডার নামিয়ে গোলের মুখ বন্ধ করে দেয় মেঘালয়ের জন্য। তবে 86 মিনিটে ফের বিপত্তি। পেনাল্টি পায় মেঘালয়। এযাত্রায় অবশ্য বাংলার বর্ষিয়াণ গোলরক্ষক প্রীয়ন্ত সিং রঞ্জনকে অক্সিজেন দেন। পেনাল্টি সেভের পর রিবাউন্ড শটও সেভ করে বাংলাকে মহামুল্যবান জয় এনে দেন প্রীয়ন্ত। যদিও ম্যাচের সেরা পুরস্কার পান মহিতোষ রায়। তবে বাংলার কোচ বলছেন, আজকের ম্যাচের সেরা বাংলার প্রত্যেকটি ফুটবলার। এই ম্যাচ জিতে যাওয়ায় সেমির পথ খোলাই রইল বাংলা দলের। পরের ম্যাচে রাজস্থানকে হারাতে পারলেই সেমিতে চলে যাবে তন্ময়, প্রীয়ন্ত, মহিতোষরা।