Date : 2022-10-02

কেন্দ্র মুখ ফেরালেও ইউক্রেন ফেরত পড়ুয়াদের পাশে রাজ্য

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক : যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেন থেকে ফেরত আসা পড়ুয়াদের ভবিষ্যত যাতে নষ্ট না হয় তারজন্য নিজেদের দায়িত্বে তাদের পাশে দাঁড়াল রাজ্য সরকার। বৃহস্পতিবার নবান্নে সাংবাদিক সম্মেলন করে একথা জানালেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

পড়াশোনা মাঝপথে ছেড়ে অনিশ্চিত ভবিষ্যৎ নিয়ে ইউক্রেন থেকে রাজ্যে ফিরেছিলেন ৪২২ জন। মার্চ মাসের ১৬ তারিখ ক্ষুদিরাম অনুশীলন কেন্দ্রে তাদের সঙ্গে দেখা করেছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুনেছিলেন তারা কি চাইছে।

এইসব ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনায় যাতে কোনো ক্ষতি না হয়, যাতে কোনো ছেদ না পড়ে তারজন্য কেন্দ্রের কাছে তদবির‌ও করেছিলো রাজ্য সরকার। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে মেডিক্যাল কাউন্সিলের কাছে চিঠিও দেয় রাজ্য। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন কেন্দ্রের অনুমতি পেলে এইসব পড়ুয়াদের জন্য রাজ্যের পরিকাঠামোর মধ্যেই ব্যবস্থা করা হবে। কিন্তু প্রায় এক মাসের বেশি অপেক্ষা করার পর কেন্দ্র জানিয়ে দেয় তারা এই বিষয়ে কিছু করতে পারবে না।

বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রী এই কথা জানিয়ে বলেন, “আমরা কিছু প্ল্যান করেছি যাতে এইসব পড়ুয়াদের ভবিষ্যত নষ্ট না হয়।” মুখ্যমন্ত্রী জানান, ইউক্রেন থেকে মাঝপথে মেডিক্যাল কোর্স ছেড়ে যে ৪১২ জন রাজ্যে ফিরেছেন তাদের রাজ্যের‌ই বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে পড়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রী আর‌ও জানান, তিনজন ওখান থেকে চাকরি ছেড়ে দিয়ে চলে এসেছিলো। এর মধ্যে দুইজন রাজ্যের কাছে চাকরীর আবেদন করেছিলো। তাদের দুইজনকে নিজ নিজ জেলায় জেলাশাসকের দফতরে অস্থায়ী পদে চাকরির ব্যবস্থা করা হয়েছে। কেন্দ্রের প্রতি কটাক্ষ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “কেন্দ্র সরকার দায়িত্বজ্ঞানহীন হলে আমরা তো তা হতে পারি না। এই ছেলেমেয়েগুলো তো আমাদের রাজ্যের‌ই সন্তান। এইভাবে তাদের ভবিষ্যৎ আমরা নষ্ট হতে দিতে পারি না।” মুখ্যমন্ত্রীর এই উদ্যোগে এতগুলো ছেলে মেয়ের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত হল বলেই মত নবান্নের আধিকারিকদের। তবে মেডিক্যাল কাউন্সিল অফ ইন্ডিয়া যদি অনুমতি না দিয়ে থাকে তবে রাজ্যের বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল থেকে পাশ করার পর এইসব পড়ুয়ারা চিকিৎসক হিসাবে রেজিস্ট্রেশন পাবে কি না সেই প্রশ্ন কিন্তু রয়ে গেল বলেই মত কার‌ও কার‌ও।