Date : 2022-05-26

“শুভবুদ্ধির উদয় হোক। ওরা ঠিক পথে চলুক’। মন্তব্য উপাচার্য মহম্মদ আলির

নাজিয়া রহমান, রিপোর্টার : “ওদের শুভবুদ্ধির উদয় হোক’- গিয়াসউদ্দিন ও তার দলবলের উদ্দেশ্যে এমনই মন্তব্য আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মহম্মদ আলির। একজন শিষ্যর কাছে গুরু ঈশ্বরের প্রতিরূপ। কিন্তু শুক্রবার স্যোসাল মিডিয়ায় একটি ভাইরাল ভিডিও দেখে লজ্জিত ও শিউরে ওঠেন মানুষ। যেখানে দেখা যাচ্ছে এক শিষ্য তার গুরুকে অশ্রাব্য ভাষায় গালাগাল দিচ্ছে এমনকি চড় মারার নিদানও দিচ্ছে। যিনি হেনস্থা করছেন তিনি আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বহিস্কৃত ছাত্র গিয়াসউদ্দিন মণ্ডল। আর যিনি চুপচাপ মুখ বুজে সব কিছু সহ্য করে যাচ্ছেন তিনি আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মহম্মদ আলি। এই দৃশ্য দেখে নিন্দার ঝড় ওঠে বাংলা জুড়ে।

এই ঘটনার বেশ কয়েকদিন কেটে গেলেও গিয়াসউদ্দিন ও তার দলের কেউই ক্ষমা চাইনি উপাচার্য মহম্মদ আলির কাছে। তবুও গিয়াসউদ্দিন ও তার দলবলের উদ্দেশ্যে মহম্মদ আলি জানান-“আমি শুধু বলব,ওদের শুভবুদ্ধির উদয় হোক। ওরা ঠিক পথে চলুক’।

শুধুমাত্র হেনস্থাকারীরাই যে তার কাছে ক্ষমা চাননি তাই নয়। এই ঘটনার পর মঙ্গলবার পর্যন্ত কোনও তরফের কেউ তার সঙ্গে যোগাযোগ করে কুশল জানতে চাননি। উপাচার্য কিছুটা আক্ষেপের সুরে বলেন-“আমি অত্যন্ত ভেঙে পড়েছি।হয়ত সকলেই খুব ব্যস্ত, তাও বলব যদি প্রশাসনের তরফ থেকে কেউ একবার অনন্ত ফোন করে খোঁজ নিলে আর একটু আশ্বস্ত হতাম।’

মহম্মদ আলি আরও জানান, আলিয়ায় উপাচার্য হিসেবে দায়িত্ব গ্রহন করার পর, প্রথম দু বছর উপাচার্য হিসেবে তার কোনও চাপ ছিল না। কিন্তু পরে পরিস্থিতির আমূল পরিবর্তন ঘটেছে বলে মত তাঁর। এখন আর উপাচার্যের দায়িত্ব নেওয়ার ইচ্ছে তাঁর নেই। তিনি অধ্যাপনা ও গবেষনার কাজ করতে যাদবপুরেই ফিরে যেতে চান। ১২ এপ্রিল আলিয়াতে উপাচার্য হিসেবে তাঁর কার্যকালের মেয়াদ শেষ হয়ে যাচ্ছে। ১৩ এপ্রিল থেকে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগ দেওয়ার ইচ্ছা আছে বলে জানান তিনি।