Date : 2022-10-02

রিপোর্ট কার্ডে ফি মেটানোর অনুরোধ।মর্মাহত অভিভাবকেরা

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক:-যে সব পড়ুয়াদের স্কুলে বেতন বাকি রয়েছে তাদের রিপোর্ট কার্ডে ফি মেটানোর অনুরোধ জি ডি বিড়লা সহ অশোকা গ্রুপের স্কুলগুলিতে। রিপোর্ট কার্ড দেখে মর্মাহত অভিভাবকেরা। নতুন রিপোর্ট কার্ড দেওয়ার জন্য স্কুলের প্রিন্সিপালকে অনুরোধ জানাবেন অভিভাবকেরা।

ফের বিতর্কের মুখে জি ডি বিড়লা সহ অশোকা গ্রুপের স্কুলগুলি। নয়া শিক্ষাবর্ষ শুরুর পর থেকেই স্কুল ফি নিয়ে বিতর্কের সূত্রপাত।স্কুল ফি দিতে না পারা পড়ুয়াদের স্কুলে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি।করোনাকালে অনেকেই আর্থিক সমস্যায় ভুগছেন। তাই জি ডি বিড়লার অনেক অভিভাবকেরই সম্পূর্ণ স্কুল ফি দেওয়া সম্ভব হয়নি। তাই বিচারের আসায় সেই সমস্ত অভিভাবকেরা আদালতের দ্বারস্থ হন। দায়ের হয় পিটিশান। কলকাতা হাইকোর্ট স্পষ্ট নির্দেশ দেয় বেসরকারি স্কুলে ফি বকেয়া থাকলেও পড়ুয়াদের ক্লাসে ওঠা আটকানো যাবে না। বাধা দেওয়া যাবে না ক্লাস করার ক্ষেত্রেও। এমন কি আইনশৃঙ্খলার দোয়াই দিয়ে বন্ধ রাখা যাবে না স্কুল। আদালতের এই রায়ে নৈতিকভাবে জয় পান অভিভাবকরা। ক্লাসরুম ফিরে পান পড়ুয়ারা। কিন্তু এবার স্কুলের বিরুদ্ধে নয়া অভিযোগ আনলেন অভিভাবকরা। পড়ুয়াদের রিপোর্ট কার্ডে লিখে দেওয়া হচ্ছে ফি মেটানোর অনুরোধ। যা নিয়ে শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক। এমন কি শ্রেণি কক্ষে পড়ুয়াদের মধ্যে একটা ভেদাভেদ সৃষ্টি করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ অভিভাবকদের।

এমনকি স্কুল গেটে ঢোকার সময় আবারও হলুদ কার্ড দেখতে চাওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ অভিভাবকদের। তাই পড়ুয়ারা যাতে স্কুলে কোনও রকম হয়রানির শিকার না হয় ও
নতুন রিপোর্ট কার্ড দেওয়ার জন্য স্কুলের প্রিন্সিপালকে অনুরোধ জানানো হবে অভিভাবকদের কাছ থেকে। আর যদি স্কুল কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে পদক্ষেপ না নেয় তা হলে আইনের দারস্থ হবেন বল জানান তারা।