Date : 2022-05-28

নয়া শিক্ষানীতি নিয়ে প্রাথমিকভাবে কাজ শুরু করেছে কমিটি

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক : নয়া শিক্ষানীতি নিয়ে তৎপর কমিটি। প্রাথমিকভাবে শুরু হয়েছে কাজ। প্রথমেই উচ্চ প্রাথমিকের পাঠ্যক্রম পরিবর্তনে চলছে চিন্তাভাবনা। সূত্রের খবর,প্রাথমিক ও উচ্চ প্রাথমিকের পাঠ্যক্রমের বিষয়ে কি সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে তা জানতে ক্যুরিয়র করে বই পাঠানো হয়েছে গায়ত্রী চক্রবর্তী স্পিভাককে।

তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসার পরেই সরকারি স্কুলের মানোন্নয়নে পড়ুয়াদের পাঠ্যক্রম বদলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় । প্রায় এগারো বছর আগে স্কুল পড়ুয়াদের পাঠ্যক্রম বদলে হাত দিয়েছিল রাজ্য সরকার। গঠিত হয় স্কুলশিক্ষা বিশেষজ্ঞ কমিটি। ধাপে ধাপে পরিবর্তিত হয়েছে সিলেবাস। তবে এবার পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে ফের পাঠ্যক্রম সংস্কার দরকার আছে বলে মনে করছেন শিক্ষাবিদরা। কেন্দ্রীয় সরকার নয়া শিক্ষানীতি গঠন করলেও তা মানতে নারাজ রাজ্য সরকার। তাই রাজ্য পৃথক শিক্ষানীতি গঠনের উদ্যোগ নিয়েছে। এই জন্য দশ জন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদদের নিয়ে গঠন করা হয়েছে একটি কমিটি। কমিটির নেতৃত্বে রয়েছেন কলোম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক গায়ত্রী চক্রবর্তী স্পিভাক। সূত্রের খবর, প্রাথমিক ভাবে কাজ শুরু করেছে কমিটি। প্রথমেই হাত দেওয়া হয়েছে প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত স্কুল পাঠ্যক্রম বদলের কাজে।

প্রাথমিক ও উচ্চ প্রাথমিক মিলে প্রায় ৬০টি বই ক্যুরিয়র করে পাঠানো হয়েছে আমেরিকার কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক গায়ত্রী চক্রবর্তী স্পিভাককে। উচ্চ প্রাথমিক পর্যন্ত পাঠ্যক্রমের মধ্যে যেগুলি অপ্রয়োজনীয় অংশ তা বিয়োজন কিংবা নতুন কিছু সংযোজনের সুপারিশ করবেন গায়ত্রীদেবী। তাঁর পরামর্শের উদ্দেশ্যেই পাঠানো হয়েছে বইগুলো।তারিখ ঠিক না হলেও খুব তাড়াতাড়ি বৈঠকে বসবেন কমিটির সদস্যরা। যেখানে রাজ্যের নয়া শিক্ষানীতি নিয়ে আলোচনা হবে। কেন্দ্রীয় শিক্ষানীতির সঙ্গে কোনও রাজ্য কিছু যোগ করতে চাইলে তাতে কোনও আপত্তি নেই বলেই জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান। অন্যদিকে রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর কথায়, “কেন্দ্রীয় শিক্ষানীতির মধ্যে ভালগুলো আমরা গ্রহণ করব।” নয়া শিক্ষানীতি নিয়ে রাজ্যের গঠিত কমিটি কেন্দ্রের সমান্তরাল নতুন শিক্ষানীতি তৈরি করবে। ২ মাসের মধ্যে রিপোর্ট দিতে হবে এই কমিটিকে।