Date : 2022-10-06

প্রচন্ড গরমেও ছেদ পড়েনি আন্দোলনে। তাপপ্রবাহকে উপেক্ষা করেই চলছে চাকরিপ্রার্থীদের আন্দোলন

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক : তীব্র দাবদহে যেখানে নাঝেহাল মানুষ। রোদের তেজ বাড়ীর বাইরে বেরোনোর আগে দুবার ভাবাচ্ছে। অন্যদিকে এই আবহাওয়াতেও লড়াই -এ বিরতি নেই এসএসসি শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষায় মেধাতালিকায় নাম থাকা আন্দোলনকারীদের। সূর্যের তেজকে উপেক্ষা করে চলছে তাদের আন্দোলন।

তাপমাত্রার পারদ ৪০ ছুঁই ছুঁই। পুড়ছে দক্ষিণবঙ্গ। কলকাতায় তাপপ্রবাহ না হলেও পরিস্থিতি অনেকটা তেমনই। প্রয়োজন ছাড়া বাইরে না বেরানোর পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। কিন্তু প্রকৃতি যতই বিমুখ হোক, থমকে যায়নি এদের লড়াই। রয়েছে মেধা তালিকায় নাম তবে মেলেনি নিয়োগ পত্র। এই অভিযোগে এক বছরেরও বেশি সময় ধরে আন্দোলনে নেমেছেন চাকরি প্রার্থীরা। মেয়ো রোডে গান্ধী মূর্তির পাদদেশে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন চালাচ্ছেন নবম-দশম শ্রেণির শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষায় মেধাতালিকায় নাম থাকা এইআন্দোলনকারীরা। তীব্র দাবদহে মাথার উপর একটুখানি ত্রিপলের ছাউনি আর হাত পাখা। এই টুকুর উপর ভরসা করে চলছে হবু শিক্ষকদের আন্দোলন। সঙ্গে পর্যাপ্ত খাবার জলটুকুও নেই। ওআরএস তো অনেক দূরের কথা। করপোরেশনের তরফ থেকে পানীয় জলের ব্যবস্থা করা হলেও সেই জল খাবার অযোগ্য বলেই জানাচ্ছেন আন্দোলনকারীরা।

অন্যদিকে শহিদ মিনারের সামনে দ্রুত নিয়োগের দাবিতে রিলে অনশনে বসেছেন এসএসসি-র শারীরশিক্ষা ও কর্মশিক্ষা চাকরিপ্রার্থীরা ।প্রচণ্ড গরম ও ডিহাইড্রেশনের জেরে প্রতিদিনই কেউ না কেউ অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। এই গরমে এখনও পর্যন্ত প্রায় ৪০জন অসুস্থ। হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা শেষে অনেককে বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে আবারও অনেকে এসে অনশন মঞ্চে যোগ দিচ্ছেন। ঠিক এতটাই অনড় অনশনকারীরা।শরীরে যতক্ষণ প্রাণ আছে ততক্ষণ চলবে আন্দোলন। তাই প্রকৃতি যতই বিমুখ হোক চলবে তাদের আন্দোলন। এমনই বক্তব্য আন্দোলনকারীদের।

2016 সালের স্কুল সার্ভিস কমিশন আয়োজিত শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষায় মেধা তালিকা অন্তর্ভুক্ত শারীরশিক্ষা ও কর্মশিক্ষা এবং নবম-দশম শ্রেণির শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষায় মেধাতালিকায় নাম থাকা চাকরিপ্রার্থীরা। কিন্তু মেলেনি এখনও নিয়োগ। তাদের অভিযোগ, রাজ্য সরকারের কাছে বারবার আবেদন করেও কোনও ফল হচ্ছে না। ইতিমধ্যেই তাঁদের পাশে দাঁড়িয়েছেন বিজেপি ও বাম সংগঠন । এমনকি তাঁদের দ্রুত নিয়োগের পক্ষে সরব হয়েছেন কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান।