Date : 2022-10-02

যোগীরাজ্যে এক শিশু সহ ৫ জনের রহস্যমৃত্যু, বন্ধ ঘরে অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত্যু

মাম্পি রায়, নিউজ ডেস্ক ঃ এক শিশু সহ ৫ জনেরঅস্বাভাবিক মৃত্যুতে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে উত্তরপ্রদেশের প্রয়াগরাজে।  শনিবার সকালে অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে খেবরাজপুর গ্রামে যায় পুলিশ। একটি ঘর থেকে ৫জনের অগ্নিদগ্ধ দেহ উদ্ধার করেন পুলিশকর্মীরা।  হাড়হিম করা এই ঘটনায় মৃতরা হল- রাম কুমার যাদব (৫৫), তাঁর স্ত্রী কুসুম দেবী (৫২), মেয়ে মনীষা (২৫), পুত্রবধূ সবিতা (২৭), নাতনি (২)। রাম কুমার যাদবের আরেকজন নাতনি সাক্ষী (৫) প্রাণে বেঁচে গিয়েছে। সিনিয়র পুলিশ অফিসার অজয় কুমার জানিয়েছেন, মৃতদের মাথায় আঘাতের চিহ্ন মিলেছে । এর থেকেই পুলিশের প্রাথমিক অনুমান পাথর দিয়ে থেতলে পাঁচজনকে খুন করা হয়েছে। প্রমাণ লোপাটের জন্য পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে ঘরের জিনিসপত্র। দেহগুলি ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশের একটি দল এবং ফরেনসিক টিম। ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়েছেন জেলাশাসক সঞ্জয় কুমার ক্ষত্রী।

গত শনিবার প্রয়াগরাজের নবাবগঞ্জ থানার অন্তর্গত খাগলপুর গ্রামে স্বামী-স্ত্রী এবং তাঁদের তিন মেয়ের রহস্যমৃত্যুর খবর মিলেছিল। এবার ঘটনাস্থল প্রয়াগরাজের খেবরাজপুর গ্রাম।  ঘটনায়তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।

গত শনিবার প্রয়াগরাজের নবাবগঞ্জ থানার অন্তর্গত খাগলপুর গ্রামে এমনই একটি ঘটনা ঘটেছিল। ৪২ বছর বয়সী গৃহকর্তার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়েছিল বারান্দা থেকে। ঘরের ভিতরে পড়েছিল তাঁর ৩৮ বছরের স্ত্রী ও ১৪, ১০ ও ৮ বছরের তিন মেয়ের নলিকাটা দেহ। ঘটনার  ৭ দিন  পর খেবরাজপুরে একই পরিবারের ৫জনের রহস্যমৃত্যুর ঘটনায় নতুন করে সন্দেহ দানা বেঁধেছে। এই দুই ঘটনার কোনও যোগসূত্র রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। পুলিশ-প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে ইতিমধ্যে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন বিরোধীরা।  ঘটনায় সুবিচারের দাবি জানিয়েছেন বিএসপি নেত্রী মায়াবতী।