Date : 2022-05-28

গলায় ফাঁস লেগেই মৃত্যু হয়েছে কাশিপুর বিজেপি কর্মী অর্জুন চৌরাসিয়ার : হাইকোর্ট

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়,সাংবাদিক:-বিতর্কের অবসান!অবশেষে কলকাতার কাশিপুরে বিজেপি কর্মী অর্জুন চৌরাসিয়ার মৃত্যু নিয়ে কলকাতা হাই কোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্ত ময়নাতদন্তের রিপোর্ট দেখে জানিয়েদিলেম অর্জুনের মৃত্যু হয়েছে গলায় ফাঁস লেগে।আর তাই রাজ্য পুলিশের ওপর ফের একবার আস্থা ডিভিশন বেঞ্চের।ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এবং ভিসেরা রিপোর্ট পুলিশের হাতে তুলে দিতে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ।

মঙ্গলবার কলকাতা হাইকোর্টে বিজেপি কর্মী অর্জুন চৌরাসিয়ার রহস্য মৃত্যুর ময়নাতদন্তের রিপোর্ট জমা দিলেন দক্ষিণ ২৪ পরগণার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট।এদিন মামলা শুনানি চলাকালীন কেন্দ্রের আইনজীবী বিল্লোদ্বল জানান আমরা ময়নাতদন্ত রিপোর্ট জমা করলাম। রিপোর্ট দেখে আদালত কোনো নির্দেশ জারি করতে চাইলে করতে পারে।
কমান্ড হসপিটালের পক্ষ থেকে আদালতে অর্জুন চৌরশিয়ার ময়না তদন্তের রিপোর্ট জমা করলো
এডভোকেট জেনারেল সৌমেন্দ্রোনাথ মুখোপাধ্যায় এখনো পর্যন্ত কোনো অভিযোগ দায়ের হয়নি। আমরা অস্বাভাবিক মৃত্যুর অভিযোগ দায়ের করে তদন্ত শুরু করেছি।
ময়নাতদন্ত মেডিকেল কলেজ ছাড়া হয়না। ৩৩ টি কেস কমান্ড হসপিটাল এসএসকেএম স্থানান্তরিত করে ময়নাতদন্তের জন্য।

মৃত বিজেপিকর্মীর পরিবারের পক্ষের আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা টেব্রওয়াল জানিয়েছেন পুলিশ অভিযোগ নিতে চাইনি তাই ভিকটিমের পরিবার অভিযোগ দায়ের করতে পারেনি।
পরিপ্রেক্ষিতে এডভোকেট জেনারেল বলেন আমাদের ময়নাতদন্তের রিপোর্ট দেওয়া হোক । আমাদের তদন্তের সুবিধা হবে।
ফের বিজেপি কর্মীর পরিবারের আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা বলেন পুলিশের ওপর আস্থা নেই তাই পরিবার সরাসরি আদালতে এসেছে।

কমান্ড হাসপাতালে বিজেপি কর্মী অর্জুন চৌরাসিয়ার ময়নাতদন্তের রিপোর্ট প্রধান বিচারপতি রাজ্যের এডভোকেট জেনারেলকে দেখতে দেন। প্রধান বিচারপতি ময়নাতদন্তের রিপোর্ট দেখে আইনজীবীদের উদ্দেশ্য জানান রিপোর্টে লেখা আছে হ্যাঙ্গিং মৃত্যু হয়েছে অর্জুন চৌরাসিয়ার।

মৃতের পরিবারের দাবি সিবিআইকে দিয়েই তদন্ত করা হোক।প্রধান বিচারপতি জানান ময়নাতদন্তের এমন কিছু উঠে আসে নি যে কারণে সিবিআইয়ের তদন্তের এই মুহুর্তে প্রয়োজন আছে।

রাজ্য পুলিশের তদন্তে আস্থা হাইকোর্টের। কাশীপুরে ঘটনার তদন্ত করবে রাজ্য পুলিশ।
ময়নাতদন্তের রিপোর্ট ও ভিসেরা রিপোর্ট রাজ্যের হাতে তুলে দেওয়ার নির্দেশ।
পরিবার আবেদন জানালে তাদেরকে ময়না তদন্তের রিপোর্ট দেওয়ার নির্দেশ।

১৯ মে পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেন প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্ত ও বিচারপতি রাজর্ষি ভারদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চ।