Date : 2022-10-02

পারিবারিক অশান্তিতে মর্মান্তিক ঘটনা

পৌষালী সেনগুপ্ত, নিউজ ডেস্ক ঃ ছয় শিশুর দেহ উদ্ধার হল একটি গভীর কুয়ো থেকে।জানা গিয়েছে, পারিবারিক অশান্তির জেরে নিজের ছয় সন্তানকে কুয়োয় ফেলে দেন তরুণী মা। নিজে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেও ব্যর্থ হন। তরুণী মাকে গ্রেপ্তার করে ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। অমানবিক ঘটনাটি মহারাষ্ট্রের রাইগড় জেলার।মাহাদ তালুকের কারাভালি নামের গ্রামটি মুম্বই থেকে ১০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। সেখানে একটি কুয়ো থেকে ছয় শিশুর দেহ উদ্ধার হয়। এদের মধ্যে পাঁচ কন্যাসন্তান। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, কুয়োয় ফেলে সন্তানদের হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে তরুণী মা রুনা চুখুরি সাহানির বিরুদ্ধে।

তরুণী মা কে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানা যায় তাঁর স্বামী মদ্যপ। এর ফলে বাড়িতে নিয়মিত অশান্তি হত। শ্বশুরবাড়ির লোকেরা তাঁকে মারধর করার পরে এই কাজ করেন তিনি। নিজেও কুয়োতে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তাঁকে অন্যরা আটকে দেয়। তরুণী মা কে জেরা করে জানা যায় উত্তরপ্রদেশ থেকে কাজের খোঁজেই মহারাষ্ট্রে এসেছিল পরিবারটি। ফলে অভাব-অনটন থেকেই মা এই কাজ করেছেন বলে আন্দাজ করছে পুলিশ। জানা গিয়েছে মৃত শিশুদের বয়স ১৮ মাস থেকে ১০ বছরের মধ্যে। তরুণী মাকে গ্রেপ্তার করে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকেই পলাতক স্বামী ও তাঁর শ্বশুরবাড়ির লোকজন। তাঁদের খোঁজেও তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে প্রায় প্রতিদিনই অশান্তি হতো সাহানির বাড়িতে। অনেকসময় বিবাদ চরমে উঠতো বলেও জানা গিয়েছে। কিন্তু মা যে এমন কাণ্ড ঘটাতে পারে তা ভাবতে পারেনি কেউ। তাই এমন কাণ্ডে হতবাক সকলেই।