Date : 2022-10-03

পুলিশের বিরুদ্ধে, মামলা করায় থানায় গিয়ে জরিমানার টাকা থানায় পৌঁছে দিতে নির্দেশ আদালতর।

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক :- আদৌ জরুরি নয়। অথচ সাধারণ মামলাকে জরুরি হিসাবে চালিয়ে দেওয়ায় চেষ্টায় পাঁচ হাজার একশো টাকা গচ্চা গেল মামলাকারীর। পুলিসের বিরুদ্ধে তদন্তে গাফিলতির অভিযোগে কলকাতা হাইকোর্টে জরুরি ভিত্তিতে শুনানির আবেদন জানিয়ে দায়ের হয়েছিল মামল। এবার মামলাকারীকে পাঁচ হাজার একশো টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে পুলিসকেই। বৃহস্পতিবার এমনই নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।

প্রসঙ্গ, নদিয়ার নাকাশিপাড়া থানা এলাকায় একটি জায়গা লিজ নিয়ে বেথুয়াডহরি লাইফ কেয়ার নার্সিংহোম নামে একটি নার্সিংহোম চলছিল। কিন্তু বছর তিনেক আগে ব্যাবসায়িক বিবাদের জেরে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে চলা নার্সিংহোমটি পরিকাঠামো এবং অর্থের অভাবে বন্ধ হয়ে যায়। সেকারণে যে জমির দখল নেন প্রকৃত মালিক। শেষমেষ গত বছরের ২৬ নভেম্বর পাকাপাকিভাবে নার্সিংহোমটি বন্ধ করে দেওয়ার নোটিস জারি করেন নদিয়া সিএমওএইচ।

সেই নোটিসে জানানো হয়, নার্সিংহোমটি চালানোর জন্য বৈধ লাইসেন্স নেই। অভিযোগ, এর কিছুদিন পর সিএমওএইচের জারি করা ওই নোটিসের বিষয়টি উল্লেখ না করেই নার্সিংহোমটি চালু করতে নাকাশিপাড়া থানার দ্বারস্থ হন নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ। যেহেতু এক্ষেত্রে নাকাশিপাড়া থানার কিছু করার ছিল না তাই তারা কোনও ব্যবস্থা নেয়নি। সেকারণে জরুরি ভিত্তিতে শুনানির আবেদন জানিয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয় নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ।

বিচারপতি রাজাশেখর মান্থার এজলাসে বিষয়টি শুনানির জন্য উঠলে উভয়পক্ষের বক্তব্য শোনার পর বিচারপতি বুঝতে পারেন বিষয়টি আদৌ জরুরি নয়। পাশাপাশি বৈধ কারণেই নার্সিংহোমটি বন্ধ করা হয়েছে। এরপরই মামলাকারীকে ভূল তথ্য দেওয়ার জন্য পাঁচ হাজার একশো টাকা জরিমানার নির্দেশ দেন বিচারপতি। নাকাশিপাড়া থানাকে ওই টাকা দিতে হবে মামলাকারীর।